দক্ষিণ চব্বিশ পরগণার নরেন্দ্রপুরের একটি  বাগানবাড়ি থেকে ট্রলির মধ্যে উদ্ধার হল দম্পতির দেহ। মৃতদের নাম প্রদীপ এবং আলপনা বিশ্বাস। তাঁরা দু' জনেই ওই বাড়ির দেখাশোনার দায়িত্বে ছিলেন। 

ঘটনাটি ঘটেছে নরেন্দ্রপুর থানা এলাকার তিউড়িয়ার একটি বাগান বাড়িতে। ওই দম্পতি গত কুড়ি বছর ধরেই ওই বাগান বাড়ির দেখাশোনার দায়িত্বে ছিলেন বলে জানা গিয়েছে। রবিবার তাঁদের শেষবার দেখতে পান এলাকার বাসিন্দারা। এর পর আর তাঁদের দেখা যায়নি বলেই দাবি স্থানীয়দের। 

আরও পড়ুন- বাড়িতেই খুন নিঃসন্তান বৃদ্ধ দম্পতি, খুনের পিছনে কি প্রমোটিং চক্র

পুলিশ সূত্রে খবর, ওই বাগান বাড়ির মালিক একাধিকবার ফোন করেও দম্পতির সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেননি। এর পর তিনি বিষয়টি প্রদীপবাবুর ভাই জয় বিশ্বাসকে জানান। খবর পেয়ে মঙ্গলবার সকালে দাদা এবং বউদির খোঁজ নিতে বাগান বাড়িতে যান জয় বিশ্বাস।

পুলিশকে ওই ব্যক্তি জানান, বাড়ির প্রধান গেট বন্ধ ছিল। পাশের একটি গেট দিয়ে তিনি ভিতরে ঢোকেন। ঘরে ঢুকে তিনি দেখেন, সব জিনিস ওলটপালট হয়ে রয়েছে। ঘরের মধ্যে রক্তও পড়ে রয়েছে। এর পরেই বাথরুমের মধ্যে দু'টি ট্রলি দেখতে পান তিনি। 
সন্দেহ হওয়ায় পুলিশকে খবর দেন ওই প্রদীপবাবুর ভাই। খবর দেওয়া হয় বাড়ির মালিককেও। এর পরই পুলিশ এসে বাথরুমের মধ্যে থাকা দু'টি ট্রলির মধ্যে থেকে প্রদীপ এবং আলপনা বিশ্বাসের দেহ উদ্ধার করে। দেহ দু'টি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়। কী উদ্দেশ্যে দম্পতিকে খুন করা হল, এর পিছনেই বা কারা রয়েছে, তা খতিয়ে দেখছেন তদন্তকারীরা।