খাস কলকাতাতেই বাড়ির মধ্যেই খুন হলেন নিঃসন্তান বৃদ্ধ দম্পতি। ঘটনার পিছনে প্রোমোটিং চক্রের হাত দেখছে পুলিশ। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনা ঘটেছে নেতাজি নগরের অশোক অ্যাভিনিউ এলাকায়। 

মৃত ওই দম্পতির নাম দিলীপ মুখোপাধ্যায় (৭২) এবং স্বপ্না মুখোপাধ্যায় (৬৫)। এ দিন সকালে ওই কাজ করতে এসে বাড়ির পরিচারিকা ওই দম্পতিকে মৃত অবস্থায় দেখতে পান। বাড়ির সদর দরজার কাছেই স্বপ্না মুখোপাধ্যায়ের দেহ পড়েছিল বলে জানা গিয়েছে। আর দোতলার ঘরে বিছানার উপরে স্বপ্নাদেবীর স্বামী দিলীপবাবুর দেহ পড়েছিল। ঘরের মধ্যে সব জিনিসই লণ্ডভণ্ড হয়েছিল। বাড়িতে থাকা টাকা এবং বেশ কিছু গয়নাও খোয়া গিয়েছে বলে জানা গিয়েছে। 

দু' জনকেই শ্বাসরোধ করে খুন করা হয়ে থাকতে পারে বলে অনুমান তদন্তকারীদের। ঘটনার খবর পাওয়ার পরেই লালবাজারের হোমিসাইড শাখার অফিসাররা ঘটনাস্থলে যান। আসেন জয়েন্ট সিপি ক্রাইম মুরলিধর শর্মাও। 

কিন্তু কেন খুন হতে হল ওই বৃদ্ধ দম্পতিকে? বাড়ির পরিচারিকা লতা মণ্ডল দাবি করেছেন, বেশ কিছুদিন ধরেই বাড়িটি ছেড়ে দেওয়ার জন্য ওই দম্পতিকে চাপ দিচ্ছিলেন কয়েকজন প্রোমোটার। মাঝেমধ্যে ফোন করেও  ওই বৃদ্ধ দম্পতিকে চাপ দেওয়া হতো বলে অভিযোগ। কিন্তু কিছুতেই বাড়ি ছাড়তে রাজি হয়নি ওই দম্পতি। ফলে এই ঘটনায় প্রাথমিক সন্দেহের তির যাচ্ছে প্রোমোটিং চক্রের দিকেই। এর পাশাপাশি বাড়ির ভাড়াটেকেও সন্দেহের ঊর্ধ্বে রাখছে না পুলিশ। কারণ ওই ভাড়াটেকেও দম্পতি উঠে যেতে বলেছিলেন বলেই জানা গিয়েছে। 

ঘটনার তদন্তে ওই বাড়িতে যায় ফরেন্সিক দল। নিয়ে যাওয়া হয় পুলিশ কুকুরও। মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্যও পাঠানো হয়েছে। পুলিশের ধারণা সোমবার রাতে খাওয়াদাওয়ার পরেই এই হত্যাকাণ্ড হয়ে থাকতে পারে। তবে যেহেতু বাড়ির মধ্যে থেকে বেশ কিছু টাকা পয়সা এবং গয়না চুরি হয়েছে, তাই লুঠের উদ্দেশ্যেই খুন কি না, তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।