শাজাহান আলি, পশ্চিম মেদিনীপুর: কোথাও কর্মবিরতি, কোথাও আবার গণইস্তফা। রোগীর পরিবারের হাতে নিগ্রহের প্রতিবাদে এ ভাবেই রাজ্যের সর্বত্র আন্দোলনে নেমেছেন চিকিৎসকরা। যা ক্রমেই ছড়িয়ে পড়ছে গোটা দেশে। আর সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা পরিষেবা কার্যত স্তব্ধ হয়ে গিয়ে অসহায় অবস্থা রোগীদের। 

এই অবস্থায় পরিষেবা বন্ধ না করেও অভিনব প্রতিবাদের পথে হাঁটলেন পশ্চিম মেদিনীপুরের এক অস্থিরোগ বিশেষজ্ঞ। সিদ্ধার্থ ঘোষ নামে ওই চিকিৎসকের মেদিনীপুরে শহরে যথেষ্টই সুনাম রয়েছে। কোনও সরকারি হাসপাতালের সঙ্গে যুক্ত না থাকলেও প্রাইভেট প্র্যাক্টিস করেন সিদ্ধার্থবাবু। নিজের বাড়িতেই রয়েছে চেম্বার। আরে সেখানেই চেম্বারের বাইরে বাঁশ, ইট এবং গামছা রেখে দিয়েছেন ওই চিকিৎসক। তার পাশে সাদা কাগজে লেখা রয়েছে, ‘ডাক্তার পেটানোর বাঁশ, পাথর ও মুখ ঢাকার গামছা পাওয়া যায়।’ সেই ছবি নিজের ফেসবুক ওয়ালেও পোস্ট  করেছেন সিদ্ধার্থবাবু। 

বৃহষ্পতিবার বিকেলে চেম্বারে রোগী দেখার আগেই তিনি এই অভিনব প্রতিবাদের পন্থাটি বেছে নিয়েছেন। আর তাঁর এই গাঁধীগিরি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট হতেই রীতিমতো ভাইরাল।  মাত্র ঘণ্টা তিনেকের মধ্যেই সিদ্ধার্থবাবুর পোস্টটি শতাধিক শেয়ার হয়েছে। 

চিকিৎসক সিদ্ধার্থ ঘোষের কথায়, 'চারিদিকে যেভাবে ডাক্তার পেটানো চলছে, তাJ প্রতিবাদ করতেই হয়। রোগী বা রোগীর পরিজনদের যাতে ডাক্তারকে মারার জন্য বাইরে গিয়ে বাঁশ বা পাথর জোগাড় করতে সমস্যা না হয়, সেই জন্য আগেভাগেই সব ব্যবস্থা করে রাখলাম। অভিনব পথেই চিকিৎসক নিগ্রহের প্রতিবাদ জানালাম।'