রাজ্যে শান্তি শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটেছে। এমনই অভিযোগ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের। এই পরিস্থিতিতে ভোট পরবর্তী নন্দীগ্রামে রাজনৈতিক প্রতিহিংসার প্রতিবাদে সংযুক্ত মোর্চা একটি শান্তি মিছিলের আয়োজন করল। 

২৫শে বৈশাখ নন্দীগ্রামের বুকে এই শান্তি মিছিল করে সংযুক্ত মোর্চা। এই মিছিলের নেতৃত্বে ছিলেন নন্দীগ্রাম বিধানসভার সংযুক্ত মোর্চার প্রার্থী মীনাক্ষী মুখার্জ্জী। এই শান্তি মিছিল পূর্ব মেদিনীপুরের নন্দীগ্রামের টেঙ্গুয়া বাস স্ট্যান্ড থেকে নন্দীগ্রাম হাসপাতাল ও থানার পাশ দিয়ে নন্দীগ্রাম বাজারে এসে শেষ হয়। শান্তি মিছিলের পর একটি পথসভা করে সংযুক্ত মোর্চা। 

নন্দীগ্রামে সংযুক্ত মোর্চার প্রার্থী তথা ডিওয়াইএফআইয়ের রাজ্য সভানেত্রী মীনাক্ষী মুখার্জী বলেন মানুষের সাথে মানুষের বিভেদ কখনো কোনো ধর্ম, ভাষা রাজনীতিকে সামনে রেখে হতে পারে না। মানুষ ভোট দিয়েছিলেন হিংসা, খুনোখুনি, রাহাজানি থেকে বাঁচতে। কিন্তু ভোট পরবর্তীতেও শুধু নন্দীগ্রাম নয়, সারা রাজ্য জুড়ে মানুষ সেই প্রতিহিংসার শিকার। এই রাজনৈতিক হিংসার প্রতিবাদে শান্তি মিছিলের আয়োজন। ।

এদিকে, তৃতীয় বারের জন্য ক্ষমতায় এসে রাজ্যে আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি পর্যালোচনা বৈঠক করেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ৫ই মে অর্থাৎ বুধবার রাজভবনে শপথ নেওয়ার পরে নবান্নে সাংবাদিক বৈঠক করেন মমতা। সেখানে পরিষ্কার জানিয়ে দেন, রাজ্যে বেশ কিছু জায়গায় আইন শৃঙ্খলার অবনতির ঘটনা রাজ্য প্রশাসনের নজরে এসেছে। 

কোনও রকমের বিশৃঙ্খলা বরদাস্ত করা হবে না বলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান। এদিন তিনি বলেন রাজ্যের যে সব এলাকায় বিজেপি জিতেছে, সেখানে অনেক রকম ঘটনা ঘটছে। রাজ্য প্রশাসনের নজরে রয়েছে এই বিষয়গুলি। এতদিন রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নির্বাচন কমিশনের আওতায় ছিল, রাজ্য সরকার কিছু করে উঠতে পারেনি। কিন্তু এবার কড়া হাতে এই ধরণের ঘটনার মোকাবিলা করবে রাজ্য সরকার। তিন মাস ধরে রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটেছে। সেইসব মেরামত করতে হবে। এটা বড়ো চ্যালেঞ্জ রাজ্য সরকারের কাছে। 

মুখ্যমন্ত্রীর আবেদন করেন রাজ্যের প্রতিটি রাজনৈতিক দল যেন শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখে। নির্বাচন পূর্বে ও নির্বাচন চলাকালীন অনেক অত্যাচার হয়েছে। সেসব বন্ধ করতে হবে। নয়তো আইন আইনের পথে চলবে। মমতা বলেন, বাংলা শান্তিপ্রিয় জায়গা, সংহতি,সম্প্রীতি ও সংস্কৃতির জায়গা। সর্ব ধর্ম বর্ণের মানুষ যেন এখানে শান্তিতে থাকতে পারেন, সেই ব্যবস্থা করতে হবে। তারজন্য প্রত্যেককে উদ্যোগী হতে হবে।