দোলের দিন দুই কিশোরীকে গণধর্ষণের অভিযোগে এখনও পর্যন্ত পাঁচ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। দুই কিশোরীর অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাঁদের চিকিৎসা চলছে বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে।  স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন দোলের দিন দুই কিশোরী বাড়ির সামনে একটি জঙ্গলে খেলা  করছিল। সেখানেই তাঁদের দুই জনকে মারধর করে মুখ চেপে ধরেই দুষ্কৃতীরা ধর্ষণ করে। সেখানেই তাদের ফেলে যাওয়া হয়। সন্ধ্যার দিকে গুরুতর জখম অবস্থায় দুই কিশোরীকে উদ্ধার করা হয়েছিল। 

প্রথমে নির্যাতিতা কিশোরীদের ভর্তি করা হয়েছিল স্থানীয় হাসপাতালে। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাদের ভর্তি করা হয় বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। দুজনেই বর্তমানে চিকিৎসাধীন। দুই নির্যাতিতার অভিভাবকরা জানিয়েছেন সন্ধ্যে পর্যন্ত মেয়েরা বাড়ি না ফেরায় তাদের খুঁজতে তাঁরা বাড়ি থেকে বেরিয়েছিলেন। জঙ্গলেই তাদের দেখা পান। দুজনেই কান্নাকাটি করছিল। সেই সময় তাদের  জিজ্ঞাসা করলে তারা তাদের ওপর হওয়া নির্যাতনের কথা স্পষ্ট করে জানান। সাইকেলে করে বেড়ানোর প্রলোভন দেখান হয়। কিন্তু তারা তাতে রাজি না হলে জঙ্গলের মধ্যে জোর করে তাদের ধর্ষণ করা হয়।  পরিবারের সদস্যরা পুলিশে অভিযোগ দায়ের করেন। 

'চক্রান্তকারীরা পরস্পরের দিকে কাদা ছোঁড়াছুড়ি করছে'. নন্দীগ্রাম নিয়ে মন্তব্য বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য

ব্যাটেল গ্রাউন্ড নন্দীগ্রামে প্রচারে টক্কর অমিত-মমতার, শুভেন্দুর হয়ে রোডশো কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর ...

এরপরই পুলিশ  পাঁচ জনকে গ্রেফতার করে। ধৃতদের বয়স ২৪-২৫এর মধ্যে। ধৃতরা হল অর্জুন সরেন ,লক্ষিন্দর হাঁজদা,শিব কিস্কু, সোমলাল বাস্কে,সুকোল হাঁজদা, অভিযুক্ত পাঁচ যুবক ওই গ্রামেরই বাসিন্দা।এক জন অভিযুক্ত অবিবাহিত, বাকি সকলেই বিবাহিত বলেও জানিয়েছে পুলিশ। নির্যাতিতার পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন, আউসগ্রাম সংলগ্ন শুখাডাঙা গ্রামে কিছু আদিবাসী সম্প্রদায়ের বাস। দোলের দিন তাঁরা একটি শ্রাদ্ধানুষ্ঠানে গিয়েছিলেন। সেখান থেকে ফিরে তারা জঙ্গলে গিয়ে গল্প করছিল। তখনই তাদের ওপর চড়াও হয় দুষ্কৃতীরা। সেই সময় তাদের ধর্ষণ করা হয় বলেও অভিযোগ উঠেছে।