ভুটান সীমান্তে লাগাতার বৃষ্টি। যার জেরে  বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হল জলপাইগুড়ির বিস্তীর্ণ অংশে। এমনকী, নদীর জলস্তর বেড়ে গিয়ে এলাকায় জল ঢুকে ভেসে গিয়ে পিচ রাস্তার একাংশও। 

গত কয়েকদিন ধরেই উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় টানা বৃষ্টি চলছে। দক্ষিণে বৃষ্টির ঘাটতি থাকলেও উত্তরে ভারী বৃষ্টি চলছে। সোমবার রাতভর ভুটান পার্বত্য এলাকা এবং ডুয়ার্সের নাগরাকাটা এলাকায় রাতভর বৃষ্টিতে জলস্ফীতি দেখা দেয় ডুয়ার্সের  নাগরাকাটা ব্লকের  বিভিন্ন নদীতে। নদীীর জলস্তর বেড়ে গিয়ে আশপাশের এলাকাগুলিতে জল ঢুকতে থাক

 

 

 

জলের প্রবল স্রোতে ভেসে যায় প্রধানমন্ত্রী গ্রাম সড়ক যোজনার রাস্তা। যার জেরে নাগরাকাটার মনমোহনপাড়া এবং ছাট টুন্ডু গ্রামের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। ছাট টুন্ডু এলাকার গাঠিয়ে নদীতে হড়পা বানের জেরে রাস্তা ভেসে যাওয়ার পাশাপাশি রাস্তার পাশে থাকা দু'টি বাড়িও ভেসে যায় বলে জানা গিয়েছে। 

 

 

অন্যদিকে মনমোহনপাড়া  এলাকায় সুখানি নদীর জল বইছে সেতুর উপর দিয়ে। পরিস্থিতির জেরে সাধারণ মানুষের মধ্যে ক্ষোভ বাড়ছে। অন্যদিকে কালীখোলা এলাকায় নদীর জল ঢুকে জলমগ্ন হয়ে পড়েছে প্রায় ৫০-৬০টি বাড়ি।

 

 

সোমবার রাত থেকে একটানা বৃষ্টিতে নাগরাকাটার ছাট তন্ডু, খেরকাটা, সুল্কাপাড়ার প্রায় ৫ হাজার পরিবার নাগরাকাটার মূল শহর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। জল স্তর না কমলে প্রশাসনও কিছুই করতে পারছে না।