কালিপুজোর রাতে দুর্গাপুজো! শুনতে অবাক লাগছে তো? এক-দু'বছর নয়, দেড়শো বছর এমনটাই হয়ে আসছে রক্ষিত পরিবারে। হেমন্তে শারদীয়ার আমেজ বাঁকুড়ার বিষ্ণুপুর শহরে। 

আরও পড়ুন: মুর্শিদাবাদে তারা মায়ের পুজোয় নানা অজানা ইতিহাস, চোখ রাখুন ঐতিহাসিক কালীপুজোয়

বিষ্ণুপুর শহরের পাটরাপাড়া এলাকায় থাকেন রক্ষিত পরিবারের সদস্যরা। দীপাবলীর রাতে যখন রাজ্যে সর্বত্র চলছে কালিপুজো, তখন সপরিবারে উমা এসেছেন তাঁদের বাড়িতে। পারিবারিক এই পুজোর বয়স দেড়শো বছর। কিন্তু কেন এমন উলটপুরাণ? কথিত আছে, রক্ষিত পরিবারের এক পূর্ব পুরুষ কালিপুজোর আগের রাতে স্বপ্নাদেশ পান। স্বপ্নে কৃষ্ণ চতুর্দশীতে তাঁর বাড়িতে পুজো নেওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেন স্বয়ং দেবী দুর্গা। সেই থেকে কালিপুজোর রাতে দুর্গা আরাধনা মেতে ওঠেন পরিবারের সকলে। সন্তানরাই শুধু নন, একচালার প্রতিমায় দেবী দুর্গার পাশে থাকে শিবও। দুর্গাপুজোর মতোই চারদিন ধরে চলে পুজোপাঠ।

আরও পড়ুন: কালীপুজোয় শিকেয় উঠল সামাজিক দূরত্ব, দিনভর পুজোপাঠ চলল তারাপীঠে

আরও পড়ুন: ১০৮টি প্রদীপ জ্বালিয়ে মঙ্গলারতি, দীপাবলীতে কালীরূপে পূজিতা হন দেবী নলাটেশ্বরী

কাজের সুবাদে রক্ষিত পরিবারের সদস্যরা এখন ছড়িয়ে-ছিটিয়ে গিয়েছেন বিভিন্ন প্রান্তে। কিন্তু কালিপুজোর রাতে দুর্গাপুজো স্বাদ নিতে বিষ্ণুপুরের পৈতৃক বাড়িতে জড়ো হন সকলে। অভিনব এই পুজোকে কেন্দ্র করে উৎসবে মেতে ওঠেন স্থানীয় বাসিন্দারাও।