সোমবারই অর্জুন সিংকে দেখতে হাসপাতালে পৌঁছে গিয়েছিলেন। উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলেন রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়েও। তার চব্বিশ ঘণ্টার মধ্যেই রাজ্য পুলিশের ডিজি-কে তলব করলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। 

রবিবার ভাটপাড়ায় পুলিশ- বিজেপি সংঘর্ষ চলাকালীন আহত হন সাংসদ অর্জুন সিং। তাঁকে দেখতে সোমবার সকালেই হাসপাতালে যান রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। দিল্লি সফর কাটছাঁট করে দ্রুত কলকাতায় ফেরেন তিনি। এর পরে রাজ্যে হিংসার ঘটনা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন রাজ্যপাল। তিনি বলেন, 'পশ্চিমবঙ্গের হিংসা নয়, শান্তির প্রয়োজন। অগ্রগতির পথে এগিয়ে যাওয়া উচিত। সাংবিধানিক পদে থেকে আমার উদ্দেশ্যই হল  আইনের শাসনে এবং শান্তিপূর্ণ পথে আস্থা রাখা উচিত। হিংসা এড়ানো উচিত। হিংসার ঘটনা দেখে আমি ব্যথিত। শিক্ষক, চিকিৎসক, আইনজীবী বা সাংবাদিকদের সঙ্গে কিছু ঘটলে আমি ব্যথিত হই।  এমন ব্যবস্থা থাকা উচিত, যেখানে সবাই শৃঙ্খলাবদ্ধভাবে কাজ করবে, কোনও হিংসায় জড়াবে না।' এ কথা বলার পরেই রাজ্যপাল বলেছিলেন, হিংসা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে যেখানে কথা বলার তিনি বলবেন। 

আরও পড়ুন- হিংসা দেখে ব্যথিত, প্রথমবার মুখ খুলেই রাজ্যের উপরে চাপ বাড়ালেন ধনখড়

সূত্রের খবর, ভাটপাড়া কাণ্ডের জেরে পুলিশ কী ব্যবস্থা নিয়েছে, তা নিয়েই মূলত ডিজি-র থেকে তথ্য জানতে চাইবেন রাজ্যপাল। অর্জুন সিংয়ের আক্রান্ত হওয়ার বিষয়টি নিয়েও কথা বলবেন তিনি। 

তবে রাজ্যপাল যাই বলুন না কেন, ভাটপাড়ায় রবিবারের উত্তেজনার জন্য অর্জুন সিং এবং তাঁর বিধায়ক পুত্র পবনকেই দায়ী করেছে রাজ্য প্রশাসন। এডিজি আইনশৃঙ্খলা জ্ঞানবন্ত সিং সোমবার সাংবাদিক সম্মেলন করে দাবি করেন, পুলিশকে যারা আক্রমণ করেছে, তাঁদের নেতৃত্বে ছিলেন ব্যারাকপুরের সাংসদ। অভিযোগ প্রমাণিত হলে কাউকেই রেয়াত করা হবে না বলেও হুঁশিয়ারি দিয়েছেন রাজ্য পুলিশের ওই শীর্ষ কর্তা।