শুভজিৎ পুততুণ্ড, বারাসত-মনের মতো পণ না পেয়ে স্ত্রীকে জোর করে দেহ ব্যবসায় নামানোর অভিযোগ উঠল স্বামীর বিরুদ্ধে। শুধু তাই নয়, বিয়ের পর থেকেই বন্ধুদের সঙ্গে ঘরের মধ্য়ে মদ খেত। তারপর বন্ধুদের তাঁর বিছানায় পাঠাত স্বামী। তার জন্য সে তার বন্ধুদের কাছ থেকে মোটা টাকাও নিত বলে অভিযোগ। স্বামী কলকাতায় নবাগত স্ত্রীকে বিক্রির চেষ্টা করেছিল বলেও অভিযোগ।

আরও পড়ুন-চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগে মৃত্যু, প্রতিবাদের উত্তপ্ত পরিস্থিতি সামাল দিতে ছুটল পুলিশ

চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে, বসিরহাট মহকুমার শালিপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের আন্দুলিয়া গ্রামে। জানাগেছে, মাস খানেক আগে আন্দুলিয়া গ্রামের বাসিন্দা পেশায় কসাইদার সমীর ঘোষের সঙ্গে বিয়েছিল ওই তরুণীর। বিয়ের সময় তরুণীর ফুচকা বিক্রেতা বাবা ৫ লক্ষ টাকা পণ দিয়েছিল বলেও দাবি। কিন্তু বিয়ের পর থেকেই আরও পণ দাবি করে স্বামী সমীর ঘোষ। এরপরই তার নবাগতা স্ত্রীকে সমীক দেহ ব্যবসায় নামানোর চেষ্টা করে বলে অভিযোগ। 

আরও পড়ুন-অপহৃত ছাত্রের দেহ উদ্ধার ঘিরে উত্তেজনা-ভাঙচুর, দেখুন সেই ছবি

আরও অভিযোগ, বাড়ির মধ্য়েই বন্ধুদের ডেকে এনে মদ খেত সমীর। তারপর, তাদের কাছ থেকে টাকা নিয়ে নবাগতা স্ত্রীর বিছানায় পাঠিয়ে দিত। কলকাতায় তার স্ত্রীকে দেহ ব্যবসা করাতে কয়েকবার এসে ফিরিয়ে নিয়ে গিয়েছে সমীর। দিনের পর দিন এই অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে অবশেষে পুলিশের দ্বারস্থ হয় নবাগত স্ত্রী।

আরও পড়ুন-ছাত্র 'অপহরণে' ৭ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবি, খালপাড়ে অপহৃতের দেহ উদ্ধারে ভাঙচুর-উত্তেজনা

হাড়োয়া থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করে নবাগত গৃহবধূ ও তাঁর পরিবার। অভিযুক্ত স্বামী সমীর ঘোষের সঙ্গে অন্য কোনও চক্র জড়িত আছে কিনা পুলিশ তার তদন্ত শুরু করেছে। পলাতক স্বামীর খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে পুলিশ।