আনলক পর্বে সচল পরিবহণ। বাস-ট্যাক্সি-অটো তো বটেই, দিন কয়েক আগে স্বাস্থ্যবিধি মেনে কলকাতায় চালু হয়ে গিয়েছে মেট্রো পরিষেবাা। কিন্তু লোকাল ট্রেন চলবে কবে থেকে? আশার কথা শোনালেন রেলবোর্ডের চেয়ারম্যান ভিকে যাদব। 

আরও পড়ুন: বাচ্চাদের খেলার বল ঘরে ঢুকতেই মিলল নরকঙ্কাল, বারুইপুরে চাঞ্চল্য

আনলকে বিপদ, লকডাউনই বা কতদিন চলবে! এই দুইয়ের দোলাচলের মাঝেই স্বাভাবিক ছন্দ ফিরছে জনজীবন। করোনা আতঙ্ককে সঙ্গীকে করে পথে বেরোচ্ছেন অনেকেই। রাস্তায় যানবাহনের অভাব নেই। বাস-ট্যাক্সি-অটো- সবই চলছে। এতদিন কলকাতার শহরের লাইফলাইন মেট্রো পরিষেবাই যা বন্ধ ছিল। এখন ই-পাস যদি সঙ্গে থাকে, তাহলে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পাতালপথে সফর করতেও আর বাধা নেই।  তাহলে লোকাল ট্রেনই বা বন্ধ থাকবে কেন? হাওড়া ও শিয়ালদহ থেকে শহরতলির বিভিন্ন রুটে ট্রেন চালু  করার দাবি জোরাল হচ্ছে ক্রমশই। তৎপরতা বেড়েছে প্রশাসনিক মহলেও, চলছে আলাপ-আলোচনা।

বৃহস্পতিবার নীতি আয়োগের সিইও অমিতাভ কান্তের সঙ্গে বৈঠক করেন রেলওয়ে বোর্ডের চেয়ারম্যান ভিকে যাদব। বৈঠকের পর সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি বলেন, 'সংশ্লিষ্ট রাজ্যের সরকার যদি প্রস্তত থাকে, তাহলে শহরতলিতে ফের রেল পরিষেবা চালুর কথা বিবেচনা করা হবে।  কীভাবে লোকাল ট্রেন চলবে, তা খতিয়ে দেখা হবে। তবে এক্ষেত্রে প্রথমে উদ্যোগ নিতে হবে রাজ্য সরকারকেই।' রেলওয়ে বোর্ডের চেয়ারম্যানের আরও বক্তব্য, করোনার প্রকোপ কমানোই সরকারের প্রথম লক্ষ্য। তবে ধীরে ধীরে ট্রেন পরিষেবা চালু করার প্রস্তুতিও শুরু করেছে রেল।

আরও পড়ুন: ঘরের নকল চাবি তৈরি করে সুযোগ বুঝে গয়না-টাকা চুরি, নরেন্দ্রপুরে গ্রেফতার মহিলা

উল্লেখ্য, বিভিন্ন সময়ে সাংবাদিক সম্মেলনে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কিন্তু এ রাজ্যে লোকাল ট্রেন পরিষেবা চালুর পক্ষেই সওয়াল করেছেন। জানিয়েছেন, প্রয়োজনে রাজ্য সরকার রেলকে সাহায্য করতেও প্রস্তুত।  তাহলে খুব তাড়াতাড়ি লোকাল ট্রেনও চালু হয়ে যাবে? সেদিকেই নজর সকলেই।