একজনের অস্ত্রোপচার করা হয়েছে, আপাতত কৃত্রিম ফুসফুসের সাহায্যে শ্বাস নিচ্ছে সে। আর একজন রয়েছে ট্রমা কেয়ার ইউনিটে। পোলবায় পুলকার দুর্ঘটনায় জখম দুই স্কুলপড়ুয়ার শারীরিক অবস্থা এখনও সঙ্কটজনক। তাঁদের চিকিৎসার জন্য সাত সদস্যের মেডিক্যাল টিম গঠন করেছে এসএসকেএম হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। দুর্ঘটনার পর থেকে হাসপাতালেই ঘাঁটি গেড়েছেন শ্রীরামপুরের তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। শিশুদের খোঁজখবর নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও।

শুক্রবার সকালে পড়ুয়াদের স্কুলে নিয়ে যাওয়ার পথে হুগলির পোলবায় দুর্ঘটনার কবলে পড়ে একটি পুলকার। পুলকারে ১৭ জন পড়ুয়া ছিল। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, কামদেবপুরে দিল্লি রোডে ওই পুলকারটির সামনে আচমকাই ইউটার্ন করে একটি লরি। এরপরই নিয়ন্ত্রণ হারান পুলকারের চালক। লরিটিকে ধাক্কা মেরে পুলকারটি উল্টে যায় রাস্তার পাশে নয়ানজুলিতে। আহতদের উদ্ধার করে নিয়ে যাওয়া হয় চুঁচুড়ার ইমামবাড়া হাসপাতালে। বাকীদের প্রাথমিক চিকিৎসার পর ছেড়ে দেওয়া হলেও, তিনজন পড়ুয়ার আঘাত গুরুতর। শারীরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় ঋষভ সিং ও দিব্যাংশ ভগত নামে দু'জনকে গ্রিন করিডোর করে নিয়ে আসা হয় কলকাতার এসএসকেএম হাসপাতালে। জানা গিয়েছে, শুক্রবার রাতেই ঋষভের অস্ত্রোপচার করেছেন চিকিৎসকরা। এখন কৃত্রিম ফুসফুসে শ্বাস নিচ্ছে সে।  আর দিব্যাংশ রয়েছে ট্রমা কেয়ার ইউনিটে। 

আরও পড়ুন: ভুতে ধরার আশঙ্কায় রাতভর ঝাঁড়ফুক, কুসংস্কারের বলি দুই শিশু

এদিকে এই ঘটনায় পুলকারের চালকের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থার নেওয়ার দাবি তুলেছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। দুর্ঘটনার কারণ খতিয়ে দেখতে ফরেনসিক বিশেষজ্ঞরা শনিবারই পোলবার কামদেবপুরে ঘটনাস্থলে যাচ্ছেন বলে জানা গিয়েছে। উল্লেখ্য, পুলকার দুর্ঘটনায় মাথায় গুরুতর আঘাত লেগেছে চালকেরও। কল্যাণীর একটি হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন তিনি।