ঘরে বসে থাকলে কি আর পেট চলবে! লকডাউন চলাকালীন ত্রাণ নিয়ে ক্ষোভ বাড়ছে সাধারণ মানুষের। এবার সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে পথ অবরোধ করলেন স্থানীয় বাসিন্দারা। পুলিশের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের সংঘর্ষের রণক্ষেত্রের চেহারা নিল উত্তর ২৪ পরগণার বাদুড়িয়া।

আরও পড়ুন: ছবি এঁকে পরজন্মের কথা বলে ভিক্ষে করেন ওঁরা, জুটছে না ইহজন্মের চালটুকুও

ঘড়িতে তখন সকাল আটটা। বাদুড়িয়া পুরসভার ৯ নম্বর ওয়ার্ডের অশ্বত্থতলায় এলাকায় বুধবার পথ অবরোধ করেন স্থানীয় বাসিন্দারা। সামাজিক দূরত্ব মেনেই চলছিল অবরোধ। বিক্ষোভকারীদের দাবি, লকডাউনের জেরে কাজকর্ম শিকেয় উঠেছে। রোজগার বন্ধ, খাবারও জুটছে না। বিপদের সময়ে সরকারি ত্রাণ বিলির ক্ষেত্রেও রাজনৈতিক ভেদাভেদ করা হচ্ছে! পুলিশকর্মীরা যখন বুঝিয়ে-সুঝিয়ে অবরোধ তোলার চেষ্টা করেন, তখন পরিস্থিতি রীতিমতো অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে। ইঁটের আঘাতে এক পুলিশকর্মীর মাথা ফেটে যায় বলে অভিযোগ। এরপরই পাল্টা লাঠিচার্জ শুরু করে পুলিশও। আর তাতেই ছত্রভঙ্গ হয়ে যান গ্রামবাসীরা। ধীরে ধীরে পরিস্থিতিও নিয়ন্ত্রণে আসে। লকডাউন ভেঙে গ্রামবাসীরা হঠাৎ করে কেন পথে নামলেন? ঘটনার নেপথ্যে রাজনৈতিক মদত নেই তো? তদন্তে নেমেছে পুলিশ।

আরও পড়ুন: লকডাউনে 'খাদ্যের সংকট', হরিরামপুরে বিডিও অফিসের সামনে বিক্ষোভ মহিলাদের

আরও পড়ুন: রেশন কার্ড বন্ধক রাখা কালিন্দীদের গ্রামে জেলাশাসক, পেনশন থেকে শুরু করে ঘর তৈরির আশ্বাস

করোনা সতর্কতায় লকডাউন চলছে রাজ্যে। সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে সাধারণ মানুষের দুর্ভোগও। অনেক জায়গায় বাজার-হাট বসছে না, খুলছে না দোকানও। যাঁদের বিপিএল কার্ড আছেন, রেশন থেকে তাঁদের বিনামূল্য খাদ্যসামগ্রী বিলির কথা ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। গরিব মানুষদের ত্রাণ বিলিরও ব্যবস্থা করা হয়েছে। কিন্তু তাতেও সমস্যা মিটছে না, উল্টে ত্রাণ নিয়ে ক্ষোভ বাড়ছে।  দিন কয়েক আগে দক্ষিণ ২৪ পরগণার মথুরাপুরে রেশন থেকে পর্যাপ্ত সামগ্রী না পাওয়ার অভিযোগে পথ অবরোধ করেছিলেন স্থানীয় বাসিন্দারা। দক্ষিণ দিনাজপুরের হরিরামপুরে আবার বিডিও অফিসের সামনে বিক্ষোভ দেখান মহিলারা।