শেষ হয়েছে লোকসভা ভোট।  সরকারি কর্মচারীরা  বুঝিয়ে দিয়েছেন তাঁরা কতটা ক্ষুব্ধ বর্তমান সরকারের ওপর।  ৪২ টির মধ্যে ৩৯ টি কেন্দ্রে সরকারি কর্মীদের পোস্টাল ব্যালটে পরাজয় হয়েছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের।  ক্ষত মেরামতিতে নেমে তাই তাঁদেরই মন পেতে চাইছে বর্তমান সরকার।

ভোট মিটতেই সরকারি কর্মচারীদের উৎসব বোনাস বা অ্যাড হক বোনাস দেওয়ার কথা ঘোষণা করল রাজ্য সরকার। সূত্রের খবর, ১০ হাজার টাকা বেতন ভোগীদের আগাম উৎসব বোনাস দেবে রাজ্য সরকার।  

এখানেই শেষ নয় উৎসব বোনাসের আট হাজার টাকা পর্যন্ত এবার বিনা সুদে অগ্রিম তুলতে পারবেন সরকারি কর্মচারীরা।  এতদিন যাবৎ ৩০ হাজার টাকা পর্যন্ত বেতনভোগীদের জন্য বরাদ্দ ছিল ৩৮০০ টাকা বোনাস। এবার তাও বাড়িয়ে ৪০০০ টাকা করা হচ্ছে।  

bangla.asianetnews.com/elections/election-results-2019-postal-ballot-counting-who-is-ahead-where-prxvdr
https://bangla.asianetnews.com/elections/tmc-defeated-in-39-seats-according-to-postal-ballot-ps1z5q
https://bangla.asianetnews.com/elections/bjp-leading-in-up-after-postal-ballot-counting-prxvei

৩০ থেকে ৩৬  হাজার টাকা পর্যন্ত বেতনের স্ল্যাবে রয়েছেন যেসব সরকারি কর্মচারীরা তাঁরা অগ্রিম হিসেবে ৬০০০ টাকার পরিবর্তে এবার ৮০০০ টাকা তুলতে পারবেন এই নতুন নিয়মে।অর্থাৎ পরিষ্কার ভাবে বললে, ১০ হাজার টাকা থেকে সর্বোচ্চ ৩০ হাজার টাকা পর্যন্ত যাদের বেতন তাঁরা এই বোনাস-এর সুবিধা পাবেন। 

এই লোকসভা ভোটে শাসক দলকে একরকম জবাব দিয়ে দিয়েছেন সরকারী কর্মচারীরা। যখন কেন্দ্রীয় সরকারের কর্মচারীদের ডিএ।  প্রতিদিন বেড়ে চলেছে তখনই রাজ্যের সরকারি কর্মচারীরা রীতিমতো ক্ষোভে ফেটে পড়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের বিরুদ্ধে।  ডিএ নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্তব্য প্রসঙ্গে কম জলঘোলা হয়নি। ফলত  ক্রমেই বেড়েছে শাসক এবং কর্মচারীদের মধ্যে দূরত্ব। আলিপুরদুয়ার, আরামবাগ, আসানসোল, বহরমপুর, বালুরঘাট, বনগাঁ, পুরুলিয়া, বিষ্ণুপুরের মত কেন্দ্রগুলিতে পোস্টাল ব্যালটে ব্যাপক ভোট পড়েছে বিজেপির পক্ষে। এর জেরেই প্রমাদ গুনছে রাজ্য সরকার। এই কারণে মমতা যখন ঘর গোছানো শুরু করেছেন, তখন প্রসার তাঁর পাখির চোখ সরকারি কর্মচারীদের মন।