কয়েকদিন আগেই বিজেরপি রাজ্য সভাপতির একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছিল। সেই ভিডিওয় নদিয়ার কৃষ্ণনগরের দলীয় নেতাদের উদ্দেশে দিলীপবাবুকে বলতে শোনা গিয়েছিল, 'হিন্দুরা মরছে মরুক।'

একুশে জুলাইয়ের মঞ্চ থেকে এবার দিলীপ ঘোষের ওই বিতর্কিত ভিডিও-কেই হাতিয়ার করলেন তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যদিও দিলীপ ঘোষের নাম নেননি মুখ্যমন্ত্রী। বিজেপি কীভাবে ধর্মের নামে রাজনীতি করছে এবং বিভিন্ন সম্প্রদায়ের উপরে অত্যাচার করছে, তা বোঝাতে গিয়েই এ দিন ওই ভিডিও-র প্রসঙ্গ টেনে আনেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। 

আরও পড়ুন- মোদী- শাহের নাম নিলেন না মমতা, বিজেপি বলছে ভয় পেয়েছেন

শহিদ সমাবেশে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তৃণমূলনেত্রী বলেন, 'সবাইকে পিটিয়ে মারছে। কখনও হিন্দুদের উপরে অত্যাচার করছে, কখনও মুসলিম- দলিতদের পিটিয়ে মারছে।' 

এর পরেই দিলীপ ঘোষের ওই বিতর্কিত ভিডিও-র প্রসঙ্গ টেনে এনে মমতা বলেন, 'হিন্দু ভাই বোনেরা মনে রাখবেন, নির্বাচনের সময় হিন্দু- মুসলমান করে। আমার কাছে একটা ভিডিও আছে, সেখানে দেখলাম এক বিজেপি নেতা বলছেন, হিন্দুদের মরতে দেও। তবেই তো আমরা জিতব। সেই ভিডিও ভাইরাল হয়েছিল। আমিও সোশ্যাল মিডিয়া থেকে পেয়েছি। ফলে, বুঝতে পারছেন তো, মা দুর্গা, মা কালী নয়, ওঁদের দেবতা আপনার উপরে চাপিয়ে দেবে! আমাদের ধর্ম শেখাচ্ছে।'

মমতার এই আক্রমণের জবাব দিয়েছেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি। মুখ্যমন্ত্রী যে ভিডিও-র কথা বলেছেন, সেটিতে তাঁরই বক্তব্য ছিল বলেও স্বীকার করেছেন খড়্গপুরের সাংসদ। দিলীপবাবু বলেন, 'আমারই ভিডিও ছিল, ভোটের পরে কৃষ্ণনগরের কিছু নেতা আমার সঙ্গে খড়্গপুরে এসে দেখা করেন। ওই ভিডিও সেখানকারই। কৃষ্ণনগরে তখন মারামারি হচ্ছিল। ওখানকার হিন্দুরা এসে আমাকে সেখানে যেতে বলেন। আমি তাঁদের বলি,  আমরা কি হিন্দুগের ঠেকা নিয়েছি নাকি? আমরা হিন্দুদের বাঁচাতে গিয়ে মার খাব, জেলে যাব! আর তার পরে আমরা সাম্প্রদায়িক হব! কেন, কীসের দায়? যাঁরা মরছে মরুক, তাঁদের বাঁচানোর দায়িত্ব আমার নয়। তাঁরা আমাদেরকে ভোট দেননি। দেশভাগের আগে থেকে শ্যামাপ্রসাদজি লড়াই করেছেন, আমরাও সেই আদর্শে লড়াই করেছি। কিন্তু দেশভাগ করে উদ্বাস্তু করেছে হিন্দুদের, তাঁরা তাদেরকেই ভোট দিয়েছে। এই কথাটা আমি সেদিন বলেছি, আজকেও সবার সামনে বলছি।'