তৃণমূল কংগ্রেসের জন্মলগ্ন থেকে হাতে আসেনি খড়গপুর। উপ নির্বাচনে রেল শহরে জয় পেয়েই পুরস্কারের কথা ভাবছেন মুখ্যমন্ত্রী। আগামী ৯ডিসেম্বরের সভায় কল্পতরু হতে পারেন মমতা। 

রাজ্যে তিন বিধানসভার উপনির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসের ভালো ফল হয়েছে। তিনটি আসনেই জয় পেয়েছে ঘাসফুল। তবে খড়গপুর ও কালিয়াগঞ্জে গত ২১ বছরে জয় আসেনি। তাই তাদের কাছে আগে ধন্যবাদ জ্ঞাপনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। জয় এলেও করিমপুরে সভা হবে পরে। আগামী ৯ ই ডিসেম্বর খড়্গপুরের নিউ সেটেলমেন্ট-এর কাছে রাবন দহন ময়দানে হবে এই প্রশাসনিক সভা। 

খড়্গপুরের এই উপ নির্বাচনে ২০ হাজারের বেশি ভোটের ব্যাবধানে জয়লাভ করেছেন তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী প্রদীপ সরকার। তাই খড়্গপুর নিয়ে রাজ্য রাজনীতিতেও ছিল বেশ চর্চা। এর আগে কখনও তৃণমূলের বিধায়ক পায়নি খড়্গপুরবাসী। তাই ১২ তারিখ দিঘায় সভার আগে ৯ তারিখ খড়্গপুরে সভা করবেন মুখ্যমন্ত্রী। এদিনই ভোটদাতাদের ধন্যবাদ জ্ঞাপন কর্মসূচি রয়েছে তাঁর। জানা গেছে,সরকারি সমাবেশে জেতানোর উপহার হিসেবে বিভিন্ন পরিষেবা বিলি করবেন মুখ্যমন্ত্রী। খড়্গপুর সদরের জন্য বিশেষ কিছুর পাশাপাশি সারা জেলার উন্নয়নের জন্য় থাকছে বিশেষ ঘোষণা।

এদিন মুখ্যমন্ত্রী প্রবেশ করার আগে তাঁর সরকারি সমাবেশের প্রস্তুতি শুরু হয়ে গেল ৷ মঙ্গলবার রাবন দহন ময়দানের সম্ভাব্য সভাস্থল পরিদর্শন করলেন পুলিশের আইজি পশ্চিমাঞ্চল রাজীব মিশ্র। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন জেলা শাসক রশ্মি কমল,পুলিশ সুপার দীনেশ কুমার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কাজি শেখ সামসুদ্দিন আহমেদ,তৃণমূলের জেলা সভাপতি অজিত মাইতি সহ অনান্যরা। এদিন সভামঞ্চ,পার্কিং জোন,বসার জায়গা, সহ বিভিন্ন জায়গা চিহ্নিত করা হয়।