একশো দিনের কাজ থেকে শুরু করে রাজ্য সড়কের প্রকল্প। কোনও কাজই ঠিক মতো এগোচ্ছে না। তাই সরকারের রিপোর্ট কার্ডেও সবথেকে পিছনে দক্ষিণ দিনাজপুরের নাম। মঙ্গলবার দক্ষিণ দিনাজপুরের গঙ্গারামপুরে প্রশাসনিক বৈঠক করতে গিয়ে জেলা প্রশাসনের কর্তাদের উপরে ক্ষোভ উগরে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়। সাফ জানিয়ে দিলেন, কাজ না করলে কাউকে রেয়াত করবেন না তিনি। 

দক্ষিণ দিনাজপুরে কাজ করতে গিয়ে বার বার বাধার সম্মুখীন হতে হচ্ছে, এ দিন সেকথা নিজের মুখেই স্বীকার করেছেন তিনি। মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগের তির মূলত ছিল জেলা পরিষদের দিকে। কারণ, জেলা পরিষদে সংখ্যাগরিষ্ঠ তৃণমূল সদস্য থাকলেও সভাপতি রয়েছেন বিজেপি-র। শাসক দলের অভিযোগ, উন্নয়নমূলক বিভিন্ন প্রকল্পে বাধা দিচ্ছেন জেলা পরিষদের সভাপতি। এ দিন প্রশাসনিক বৈঠকে জেলাশাসক নিখিল নির্মলও সেদিকেই ইঙ্গিত করেন মুখ্যমন্ত্রীর দিকে। অভিযোগের সুরে জেলাশাসক মুখ্যমন্ত্রীকে বলেন, উন্নয়নমূলক প্রকল্পের জন্য সরকারি বৈঠক ডাকলেও কেউ কেউ আসছেন না। যে কারণে থমকে যাচ্ছে কাজ। 

এ কথা শুনে ক্ষুব্ধ হন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পাল্টা জেলাশাসককে তিনি বলেন, উন্নয়নমূলক কাজের জন্য কারও দিকে তাকিয়ে না থাকতে। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, 'শোনো কাজ না হলে মানুষ আমাকে প্রশ্ন করবে। আর আমি যদি মনে করি কাজ হচ্ছে না, তাহলে আমি কাউকে রেয়াত করব না।'

এ দিনের বৈঠক থেকে বার বারই জেলা প্রশাসনের কর্তাদের সরকারি প্রকল্পের সুবিধে সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছ দেওয়ার নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী। সরকারি প্রকল্পের উপভোক্তাদের সঙ্গে নিয়মিত বৈঠক করার জন্য নির্দেশ দেন বিডিও-দের। এর পাশাপাশি কাশ্মীরে কর্মরত দক্ষিণ দিনাজপুরের যে শ্রমিকরা ফিরে এসেছেন, তাঁদেরকে পঞ্চাশ হাজার টাকা করে অর্থ সাহায্য তুলে দেন মুখ্যমন্ত্রী।