সম্পত্তিগত বিবাদের জেরে বাবা ও মা কে হাঁসুয়া দিয়ে নৃশংস ভাবে কুপিয়ে খুনের চেষ্টা করল সন্তান।  আজ ঘটনাটি ঘটেছে বাঁকুড়ার ইন্দাস থানার বামনিয়া গ্রামে।  পুলিশ অভিযুক্তকে আটক করেছে। 
স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, বাঁকুড়ার ইন্দাস থানার বামনিয়া গ্রামের বাসিন্দা প্রফুল্ল ভৌমিক ও বিনারানি ভৌমিকের তিন সন্তানের মধ্যে প্রশান্ত ভৌমিক বড়।  কয়েক বছর আগে ছোট ছেলে পরিতোষ ভৌমিক ভালোবেসে বিয়ে করে এক ভিনজাতের মেয়েকে ।  প্রাথমিকভাবে এই বিয়ে মেনে না নিলেও মাস ছয়েক আগে বাবা-মা বিয়ে মেনে নেয়।  ছোট ছেলের এই বিয়ে বাবা-মা মেনে নেওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে বাবা-মার সাথে বড় ছেলে প্রশান্ত ভৌমিকের দ্বন্দ্ব শুরু হয়।  

ছোট ছেলেকে সম্পত্তির ভাগ না দেওয়ার দাবি তুলে প্রশান্ত মাঝে মধ্যেই বাবা ও মাকে মারধর করত বলে অভিযোগ। শনিবার দুপুরে এ নিয়ে বাবা-মার সাথে বচসা হলে প্রশান্ত একটি হাঁসুয়া নিয়ে বাবা ও মায়ের উপর চড়াও হয়ে এলোপাথাড়ি কোপ মারতে শুরু করে। হাসুয়ার কোপে মা বীনারানির  ও বাবার শরীরে একাধিক চোট লাগে। হেসোর কোপে রক্তাক্ত হয় মায়ের হাত। ঘটনাস্থলেই রক্তাক্ত অবস্থায় লুটিয়ে পড়ে দুজন। দুজনকে গুরুতর আহত অবস্থায় ফেলে রেখে চম্পট দেয় প্রশান্ত। খবর পেয়ে  আহতদের ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে প্রথমে ইন্দাস ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে পাঠায় ইন্দাস থানার পুলিশ ।  পরে তাদের বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজে স্থানান্তরিত করা হয়। পুলিশ অভিযুক্ত প্রশান্ত ভৌমিককে আটক করেছে। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। স্থানীয়রা অভিযুক্তর কঠোর শাস্তির দাবি জানিয়েছে।