কৌশিক সেন, রায়গঞ্জ: উলটপুরাণ! টাকার দাবিতে এবার জামাইকে আটকে রাখলেন শ্বশুরবাড়ির লোকেরা। পুলিশ সুপারের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন ওই যুবকের পরিবারের লোকেরা। চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে উত্তর দিনাজপুরের ইসলামপুরে।

আরও পড়ুন: লক্ষাধিক টাকা কর বকেয়া, রাজ্যের দুটি পুরসভার অ্যাকাউন্ট ফ্লিজ করল জিএসটি দপ্তর

ঘটনাটি ঠিক কি? উত্তর দিনাজপুরের ইসলামপুরের দাড়িভিট লাগোয়া পো়ড়াভিটা এলাকায় বাপের বাড়ি নুরফুল খাতুনের। বছর দুয়েক আগে মতিবুল রহমান নামে এক যুবকের সঙ্গে বিয়ে হয় তাঁর। মতিবুলের বাড়ির উত্তর দিনাজপুরেরই চোপড়া থানায় তিনমাইল এলাকায়। পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগে মতিবুলের দাদা হাসিবুল জানিয়েছেন, দিন দশেক আগে মেয়েকে নিয়ে যাওয়ার জন্য নুরফুলের বাবা নিজেই তাঁদের বাড়িতে যান। এরপর ২১ সেপ্টেম্বর জামাই মতিবুলকে ডেকে পাঠান শ্বশুরবাড়ি লোকেরা। এরপরই ঘটে বিপত্তি।

আরও পড়ুন: বাসন্তীতে পুলিশের অভিযান, উদ্ধার আগ্নেয়াস্ত্র-কার্তুজ

হাসিবুল রহমানের দাবি, ভাই না ফেরায় যখন শ্বশুরবাড়িতে ফোন করেন, তখন জানতে পারেন, মতিবুলকে রীতিমতো মারধর করে সেখানে আটকে রাখা হয়েছে। কী ব্যাপার? ভগ্নিপতি এরশাদ আলিকে পাঠালে, তাঁকেও আটকে রাখা হয় বলে অভিযোগ। সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়, তিন লক্ষ টাকা দিলে, তবেই মতিবুল ও এরশাদকে ছাড়া হবে! এরপর ইসলামপুর পুলিশ জেলার সুপারের লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন আটক যুবকের পরিবারের লোকেরা। পুলিশ সুপার শচিন মক্কর জানিয়েছেন, বিষয়টি নজরে এসেছে। খোঁজখবর নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।