শ্বশুরবাড়ি থেকে দু' লাখ টাকা দামের শখের বাইকের আবদার করেছিল জামাই। কিন্তু তা পূরণ না হওয়ার আক্রোশে কুড়ুল দিয়ে স্ত্রীর ধড় থেকে মাথা আলাদা করে দিল যুবক। নৃশংস এই ঘটনা ঘটেছে মুর্শিদাবাদের ভগবানগোলার ওরাহার গ্রামে। 

নিহত মহিলার নাম সুবিনা বিবি (২৪)। তাঁকে হত্যার অভিযোগে স্বামী সেলিম শেখকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। জানা গিয়েছে, ঘুমন্ত অবস্থাতেই কুড়ুল দিয়ে নিজের স্ত্রীর উপরে হামলা চালায় অভিযুক্ত। 

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে খবর,বছর ছ' য়েক আগে লালগোলার জোতভিখান গ্রামের সুবিনার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে ভগবানগোলা থানার সুন্দরপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের ওড়াহার এলাকার বাসিন্দা পেশায় দিনমজুর সেলিম শেখের। শুরুর দিকে মেয়ের বাড়ির তরফে বিয়েতে সম্মতি না থাকলেও পরে সুবিনার পরিবার তা মেনে নেয়। বর্তমানে ওই দম্পতির সাড়ে তিন বছর ও ন' মাসের দু'টি  সন্তানও রয়েছে।

অভিযোগ,সম্প্রতি নেশাগ্রস্ত হয়ে পড়ে সেলিম। সেই সঙ্গে স্ত্রীকে অতিরিক্ত পণের জন্য অকথ্য অত্যাচারও শুরু করে সে। যদিও বিয়েতে সুবিনার বাবা দুই দফায় নগদ ৪০ হাজার টাকা ও জামাইকে পাকা বাড়ি বানানোর জন্য আরও দেড় লক্ষ টাকা দেন বলে জানিয়েছেন। 

এতেও অবশ্য সন্তুষ্ট হয়নি অভিযুক্ত সেলিম। দিন কয়েক আগে থেকে প্রায় ২ লক্ষ টাকা দামের  বাইক কেনার জন্য সুবিনার উপর চাপ বাড়াতে থাকে সে। আর তা না পেয়েই গাছ কাটার কুড়ুল দিয়ে সেলিম সুবিনাকে খুন করেছে বলে অভিযোগ মৃতার বাবা আনারুল হকের। তিনি বলেন,'জামাই সেলিম ও তার বাড়ির লোকেরা টাকার জন্য যেভাবে আমার মেয়েকে খুন করেছে, তার ফাঁসি ছাড়া অন্য কোনও সাজা যেন না হয়।' সেলিম কে জেরা করে হত্যায় ব্যবহৃত কুড়ুলটি উদ্ধার করেছে পুলিশ। 

ধৃতকে রবিবার লালবাগ মহকুমা আদালতে তোলা হলে তাকে ৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত জেল হেফাজতের নির্দেশ দেন বিচারক। পাশাপাশি ঘটনায় অভিযুক্ত শ্বশুর, শাশুড়ি ও দেওয়র-সহ আরও তিন জনের খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে পুলিশ।