রাতে শোওয়ার আগে ধূমপান করেন অনেকেই। কিন্তু তা বলে সিগারেট খেতে খেতেই ঘুম!  বন্ধ ঘরে আগুন লেগে বেঘোরে প্রাণ গেল এক বৃদ্ধের। এমনই মর্মান্তিক ঘটনা ঘটল খিদিরপুরের ওয়াটগঞ্জে।

মৃতের মহম্মদ ইলিয়াস। ওয়াটগঞ্জের মুন্সিগঞ্জে রোডে থাকতেন বছর চুয়াত্তরে ওই বৃদ্ধ। ঘন ঘন সিগারেট খেতেন মহম্মদ।  এলাকায় পরিচিত ছিলেন 'চেন স্মোকার' হিসেবে। তেমনটাই জানিয়েছেন প্রতিবেশীরা। রবিবার সকালে ওই বৃদ্ধের ঘর থেকে ধোঁয়া বেরোতে দেখেই প্রমাদ গোনেন স্থানীয় বাসিন্দারা। ঘরে যে আগুন লেগে গিয়েছে, তা বুঝতে পারেন সকলেই।  ঘরের দরজায় ধাক্কায় ওই বৃদ্ধকে ডাকাডাকি করতে শুরু করেন তাঁরা। কিন্তু কোনও সাড়াশব্দ পাওয়া যায়নি। শেষপর্যন্ত ভেঙে ফেলা হয় ঘরের দরজা। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, ঘরে ঢুকে তাঁরা দেখেন, যাবতীয় আসবাবপত্র আগুনে পুড়ে দিয়েছে। মেঝেতে অচৈতন্য অবস্থায় পড়ে রয়েছেন মহম্মদ। তাঁর দুই আঙুলের ফাঁকে তখনও পোড়া সিগারেট ধরা ছিল বলে জানা গিয়েছে।  তড়িঘড়ি মহম্মদ ইলিয়াসকে নিয়ে যাওয়া হয় এসএসকেএম হাসপাতালে। কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি। দুপুরে হাসপাতালে মারা যান ওই বৃদ্ধ।

আরও পড়ুন: প্রেমে প্রত্যাখ্যান পেয়ে ধারাল অস্ত্রের কোপ, এসএসকেএম থেকে বাড়ি ফেরা হল না অঙ্কিতার

স্থানীয় বাসিন্দাদের অনুমান, রাতে সম্ভবত সিগারেট খেতে খেতেই ঘুমিয়ে পড়েছিলেন মহম্মদ ইলিয়াস। সিগারেটের ফুলকি গিয়ে পড়ে বিছানায়। তা থেকে আগুন লেগে যায়।  বিছানা ও আসবাব পোড়ার কারণে বন্ধ ঘর ভরে যায় বিষাক্ত কার্বন মনোক্সাইড গ্যাসে। সেই গ্যাসে  শরীরে যাওয়ার ফলে মারা গিয়েছেন ওই বৃদ্ধ।