ছেলেধরা গুজবে ফের গণপিটুনি। আবারও মৃত্যু হল এক ভবঘুরে যুবকের। এবার ঘটনাস্থল আলিপুরদুয়ারের তাসাটি চা বাগান। শূন্যে গুলি চালিয়েও যুবকের প্রাণ বাঁচাতে ব্যর্থ হন পুলিশকর্মীরা। 

স্থানীয় সূত্রে খবর, রবিবার রাত সাড়ে আটটা নাগাদ চা বাগানের ফুটবল খেলার মাঠ সংলগ্ন এলাকায় এক ভবঘুরেকে দেখতে পান স্থানীয় কয়েকজন বাসিন্দা। ছেলেধরা সন্দেহে ওই যুবককে বেধড়ক মারধর শুরু হয়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় জটেশ্বর ফাঁড়ির পুলিশকর্মীরা। অভিযোগ, ভবঘুরেকে বাঁচাতে গেলে পুলিশকেই উল্টে তাড়া করা হয়। জনরোষের মুখে পড়ে প্রথমে পিছু হটেন আট পুলিশকর্মী। পুলিশ দূরে সরতেই অত্যাচারের মাত্রা বেড়ে যায় ওই যুবকের উপরে। 

শেষ পর্যন্ত আরও বাহিনী নিয়ে ফের ঘটনাস্থলে যায় পুলিশ। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে শূন্যে গুলি চালানো হয়। ভয় পেয়ে জনতা সরে গেলে আক্রান্ত যুবককে উদ্ধার করে বীরপাড়া রাজ্য সাধারণ  হাসপাতালে নিয়ে যায় পুলিশ। কিন্তু জখম ব্যক্তিকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা। 

আরও পড়ুন- ছেলেধরা গুজবে সন্দেহ, পুলিশের সামনেই জলপাইগুড়িতে বহুরূপী যুবককে থেঁতলে খুন

গণপিটুনির ঘটনায় রাতেই তদন্তে নামে পুলিশ। ভবঘুরের উপরে হামলার অভিযোগে দুই ব্যক্তিকে আটক করা হয়। তাঁদের জিজ্ঞাসাবাদ করে বাকিদের খোঁজে চলছে তল্লাশি। 

গত ২২ জুলাই জলপাইগুড়ির নাগরাকাটাতেও একইভাবে ছেলেধরা সন্দেহে বহুরূপী সেজে থাকা এক যুবককে পাথর দিয়ে থেঁতলে হত্যা করা হয়। তার পরে গুজবের জেরে গণপিটুনি রুখতে সক্রিয় হয় প্রশাসন। কিন্তু তাতেও যে কাজের কাজ হয়, পাশের জেলা আলিপুরদুয়ারের ঘটনাতেই তা ফের প্রমাণিত।