কলাবাগানে কোয়ারেন্টাইন শিবির ! মহারাষ্ট্র  থেকে আগত বেশ কিছু পরিযায়ী শ্রমিক বাড়ি না গিয়ে স্বেচ্ছায় চলে এসেছেন শিবিরে । এদিন পোলবা থানার সুগন্ধায় গেলে এই দৃশ্য দেখা যায় । গত কয়েক দিন ধরেই দলে দলে পরিযায়ী শ্রমিক ফিরছেন হুগলিতে । দেখা যাচ্ছে, তাঁদের মধ্যে অনেকেরই করোনার উপসর্গ রয়েছে। ইতিমধ্যেই আরামবাগ মহকুমায় আক্রান্তের সংখ্যাটা ২৬ ছাড়িয়ে গেছে। 

এছাড়াও জেলার অন্যান্য জায়গা থেকেও আক্রান্ত পরিযায়ী শ্রমিকদের খবর আসছে । গতকালও  গাড়ি ভাড়া করে বেশ কিছু পরিযায়ী শ্রমিক মুম্বই থেকে পোলবার দোগাছিয়া গ্রামে ফেরেন । কিন্তু তাঁদের প্রত্যেকের পরিবারে ছেলে-বৌ আছে। তাই তাঁরা প্রথমেই থানায় যান তারপর নিকটবর্তী স্বাস্থ্যকেন্দ্রে গিয়ে পরীক্ষা করিয়ে ঠিক করেন বাড়ি ফিরবেন না । কারণ তাঁদের এখনও সোয়াব টেস্ট হয়নি । 

তাঁরা চিন্তা করেন এই সময় বাড়িতে ঢোকা ঠিক নয় তাই তাঁরা নিকটবর্তী কলাবাগান , আমবাগান এ পলিথিনের শিট দিয়ে তাঁবু  তৈরি করে সেখানেই সাময়িকভাবে থাকবেন । এক পরিযায়ী শ্রমিক বলেন , আমরা সবাই মুম্বাইয়ে স্বর্ণশিল্পের সঙ্গে জড়িত । ওখানে আর থাকা যাচ্ছে না একে কাজ বন্ধ তার ওপর করোনা সংক্রমণ গণহারে সেখানে বৃদ্ধি পেয়েছে । যাঁরা লাকি তাঁরা অনলাইন বুক করে ট্রেনে চাপতে পেরেছেন । আমরা গাড়ি ভাড়া করে চলে এসেছি । মরতে হলে এখানেই মরবো । 

তবে আমরা এখন কেউ বাড়ি ঢুকব না । যতক্ষণ না সোয়াব টেস্টের রিপোর্ট নেগেটিভ আসে । তাই আমরা স্বেচ্ছায় এখানে অস্থায়ী বাসস্থান বানিয়ে থাকছি । স্থানীয় সুগন্ধা গ্রাম পঞ্চায়েত থেকে আমাদের খাবার ব্যবস্থা করেছে । অন্যদিকে পোলবা থানার অফিসার ইন চার্জ রাজকিরণ মুখার্জী জানিয়েছেন , তাঁরা প্রশাসনের পক্ষ থেকে কিছু স্কুল নিয়েছেন যেখানে অস্থায়ী কোয়ারেন্টাইন শিবির করা হয়েছে । যাঁরা সেখানে যেতে ইচ্ছুক তাঁদেরকে সেখানে পাঠিয়ে দেওয়া হবে ॥