আশিষ মণ্ডল, বীরভূম: চারদিনের পুজো মিটেছে নির্বিঘ্নেই। বিসর্জনের আগে বাজির আগুনে ভষ্মীভূত হয়ে গেল মণ্ডপ। পুড়ে দিয়েছে প্রতিমাও। একাদশীর সন্ধ্যায় আতঙ্ক ছড়াল বীরভূমের রামপুরহাটে। 

আরও পড়ুন: প্রতিমার সঙ্গে বিসর্জন আরও ৫টি তরতাজা প্রাণের, দশমীতে গভীর শোকের ছায়ায় ডুবল মুর্শিদাবাদ

রামপুরহাট শহরের পাঁচ নম্বর ওয়ার্ডে হাটতলা সার্বজনীন দুর্গোৎসব। এবছর পূজো ৬৭ বছরের পড়ল। টেরপ্রতিবছর যেমন হয়, এবার তেমনই দ্বাদশীর দিনে অর্থাৎ বুধবার প্রতিমা নিরঞ্জন হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু তার ঘটে ঘটল বিপত্তি। সোমবার সন্ধ্যার দিকে আচমকাই দাউদাউ করে জ্বলতে শুরু করে পুজো মণ্ডপ। ঘটনার জেরে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। খবর পেয়ে যখন দমকল ঘটনাস্থলে পৌঁছয়, ততক্ষণে সবশেষ। মণ্ডপের আর কিছুই অবশিষ্ট ছিল না, এমনকী, পুড়ে গিয়েছে প্রতিমাও।

আরও পড়ুন: বাড়ির সামনে বিজেপি সমর্থককে গুলি করে খুন, দশমীর রাতে রক্ত ঝরল কোচবিহারে

হাটখোলা সার্বজনীন দুর্গোৎসব কমিটির সাংস্কৃতিক সম্পাদক প্রশান্ত রায় বলেন,  'আমরা আগেই বলেছিলাম মণ্ডপের সামনে কেউ বাজি পোড়াবে না। তা সত্ত্বেও রকেট বাজি পোড়ান হয়েছে। সেই রকেটের আগুন গিয়ে পড়ে মণ্ডপের উপরের ত্রিপলে। কিছুক্ষণের মধ্যে দাউ দাউ করে আগুন জ্বলতে থাকে। চোখের সামনে সমস্ত মণ্ডপ এবং প্রতিমা পুড়ে যেতে দেখলাম। দমকল আসার আগেই সব পুড়ে যায়। তবে দমকল কর্মীরা সম্পূর্ণ আগুন নিভিয়ে তারপর ফিরে যান। আবার আমরা পুজো করব সিদ্ধান্ত নিয়েছি। সব ঠিকঠাক থাকলে আসন্ন জগদ্ধাত্রী পুজোয় মায়ের আরাধনা করব।'