আশিষ কুমার মণ্ডল, বীরভূম: করোনা আবহে প্রকোপ বাড়ছে অজানা রোগের। আরও এক শিশুর মৃত্যু হল বীরভূমের মাড়গ্রামে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চিঠি লিখলেন হাঁসনের কংগ্রেস বিধায়ক মিল্টন রশিদ। মৃত শিশুদের পরিবারকে আর্থিক সাহায্য করার দাবি জানিয়েছেন তিনি। 

আরও পড়ুন: করোনা সংক্রমণের শিকার বিডিও, আতঙ্ক ছড়াল কেশিয়ারিতে

বমি ও হাল্কা জ্বরের উপসর্গ ছিল। মাত্র পনেরো দিনের ব্যবধানে মাড়গ্রামে মৃত শিশুর সংখ্যা বেড়ে হল পাঁচ। অজানা রোগে আক্রান্ত হয়ে রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে ভর্তি আরও কয়েকজন। খবর পেয়ে এদিন স্থানীয় এঁটোলপাড়া গ্রামে যান রামপুরহাট স্বাস্থ্য জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক পার্থ দে, বসোয়া ব্লক স্বাস্থ্য আধিকারিক অভিজিৎ রায় চৌধুরী। এলাকার শিশুদের রক্ত নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পরীক্ষার জন্য রক্তের নমুনা পাঠানো হবে কলকাতা কলকাতার ট্রপিক্যাল মেডিসিনে এবং নাইসেডে। রামপুরহাটের মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক পার্থ দে জানিয়েছেন,  'আমরা গ্রামের ১৩১ জনের করোনা পরীক্ষা করেছিলাম। সকলের নেগেটিভ এসেছে। তাই এবার রক্ত পরীক্ষা করা হচ্ছে। মনে হচ্ছে, খাবার থেকেই রোগ ছড়িয়েছে। রক্ত পরীক্ষা রিপোর্ট হাতে পেলে কিছুটা আন্দাজ পাওয়া যাবে।'

আরও পড়ুন: চোপড়া ছাত্রী মৃত্যুকাণ্ডে নয়া মোড়, পুলিশের জালে মৃত কিশোরীর বাবা ও দুই দাদা

এদিকে অসুস্থ শিশুদের চিকিৎসা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বীরভূমের হাঁসনের কংগ্রেস বিধায়ক মিল্টন রশিদ। তাঁর প্রশ্ন, ১৫ দিন ধরে একের পর এক শিশু মারা যাচ্ছে। অথচ চিকিৎসা ব্যবস্থা চলছে ধীরগতি। আর কতজন মারা গেলে সরকারের হুঁশ ফিরবে! মৃতদে পরিবারকে আর্থিক সাহায্য করার দাবি জানাচ্ছি।'