আগেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি জানিয়েছিলেন এবার রঙের উৎসবে তিনি অংশ নেবেন না। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়তে থাকায়  এই পথে হেঁটেছেন তিনি। পাশাপাশি দেশের মানুষের কাছেও তাঁর আবেদন ছিল সচেতন হওয়ার। যথেষ্ট সাবধানতা অবলম্বন করে চলার। সেই পথেই হাঁটলেন রাজ্যের বিজেপি নেতা। 
রং খেলা থেকে বিরত রইলেন রাজ্যের বিজেপি নেতা মুকুল রায়। অন্যবারের মত এদিনও সকাল থেকে তাঁর বাড়িতে ছিল অনুগামীদের ভিড়। কিন্তু করোনার প্রকোপ এড়াতে তিনি দোল খেললে না বলেও জানিয়েছেন। পাশাপাশি করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে কেন্দ্রীয় সরকারের দেওয়া গাইড লাইন মেনে চলার পরামর্শ দেন মুকুল রায়। এদিন তিনি দোল যাত্রার উপলক্ষ্যে শুভেচ্ছা জানান রাজ্যের মানুষকে। তিনি বলেন আগামী দিন গুলি রাজ্যের মানুষের কাছে আরও সুন্দর হয়ে উঠুক। এই কামনাই তিনি করেন। একই সঙ্গে মুকুল রায় করোনাভাইরাসের প্রসঙ্গও উত্থাপন করেন। তিনি বলেন, গোটা বিশ্বেই করোনার প্রকোপ পড়েছে। এখনও তেমন ভারতে তেমন প্রভাব বিস্তার করতে পারেনি করোনার জীবানু। পরিস্থিতি মোকাবিলায় কেন্দ্রের বিজেপি সরকার যথেষ্ট যত্নবান বলেও জানিয়েছেন তিনি। 

আরও পড়ুনঃ দোলের দিন হয় কালীপুজো, কেউ আবার এদিন নয় দোল খেলের পরের দিন, এই বাংলার কিছু অজানা কাহিনি


দিল্লির হিংসা থেকে দেশের মানুষের নজর ঘোরাতেই করোনার সংক্রমণকে হাতিয়ার করা হচ্ছে। এমনই অভিযোগ করেছিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তথা  তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যা। সেই প্রসঙ্গে প্রশ্ন করা হলে অবস্য বিষয়টি এড়িয়ে গিয়ে বলেন, মুখ্যমন্ত্রী কী বলেছেন তা তিনি জানেন না। তবে করোনাভাইরাস নিয়ে রাজ্য সরকারও যে বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে তাও জানিয়ে দেন তৃণমূল ছেড়ে বিজেপির খাতায় নাম লেখানো মুকুল রায়। 

আরও পড়ুনঃ খোলার সময়ই ধাক্কা খেল সেনসেক্স, পড়ল ১,৭০০, নিম্নগামী অপরিশোধিত তেলও

করোনাভাইরাস প্রসঙ্গে মন্তব্য করতে গিয়ে বীরভূমের বিতর্কিত তৃণমূল নেতা অনুব্রত মণ্ডল নিশানা করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে। তিনি বলেছিলেন মোদিই একটি ভাইরাস। এদিন সেই প্রসঙ্গেই প্রশ্ন করা হয় বিজেপি নেতা মুকুল রায়কে। এক সময়ের রাজনৈতিক সহকর্মী অনুব্রত মণ্ডলের তীব্র সমালোচনা করে মুকুল রায় বলেন এই জাতীয় প্রশ্নের উত্তর তিনি দেবনা।