সোমবার ভোররাতে চন্দ্রযান ২ ওড়ার কথা থাকলেও শেষ মুহূর্তে তা স্থগিত করে দিয়েছে ইসরো। তা নিয়ে চর্চার মধ্যেই সোমবার সাতসকালে ইসরোর নাম লেখা রহস্যময় সোলার বাক্স নিয়ে তুমুল চাঞ্চল্য তৈরি হল পশ্চিম মেদিনীপুরের চন্দ্রকোনা রোডে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে পুলিশও। কিন্তু কে ওই বাক্স রাখল, কী বা উদ্দেশ্যে, তা নিয়ে তৈরি হয় রহস্য। শেষ পর্যন্ত জানা যায়, আসলে আবহাওয়া সংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহের জন্যই ওই যন্ত্র ব্যবহার করা হয়। 

আরও পড়ুন- ৫৬ মিনিট আগে ধরা পড়ল বিভ্রাট, চন্দ্রযান ২- এর চাঁদে পাড়ি আপাতত স্থগিত

আরও পড়ুন- দক্ষিণ মেরুতে অবতরণ করবে চন্দ্রযান ২, আর কী কী কাজ করবে, জানুন

সোমবার সকালে চন্দ্রকোনা থানার ২ নম্বর ব্লকের বসনছোড়া গ্রামের মাঠের মধ্যে বিভিন্ন যন্ত্রাংশ যুক্ত একটি সোলার বাক্স দেখতে পায় স্থানীয় বাসিন্দারা। বাক্সের মধ্যে বিস্ফোরক থাকতে বলে মুহূর্তে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। বাক্স দেখতে ভিড় জমতে শুরু করে স্থানীয় বাসিন্দাদের। বাক্সের গায়ে আবার সাধারণ একটি কাগজের উপর লেখা ছিল, 'এটি ভারত সরকারের (ইসরোর) সম্পত্তি। এর মধ্যে কোনও বিস্ফোরক নেই। দয়া করে খুলবেন না।' শুধু তাই নয়, বাক্সটি পাওয়া গেলে যোগাযোগের জন্য একটি মোবাইল নম্বরও লেখা ছিল। 

খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে আসে চন্দ্রকোণা থানার পুলিশ। মানুষের ভিড় বাড়তে থাকায় গোটা এলাতা ঘিরে ফেলে তারা। শেষ পর্যন্ত অবশ্য যাবতীয় জল্পনায় দাঁড়ি পড়ে। বাক্সের উপরে লেখা মোবাইল নম্বরে ফোন করা হলে স্থানীয় বিডিও দফতর থেকে কর্মীরা এসে হাজির হন। যাবতীয় জল্পনায় ইতি টেনে তাঁরা জানান, ওই যন্ত্রটি আসলে কৃষিপ্রধান এলাকার একটি নির্দিষ্ট অংশের তাপমাত্রা-সহ আবহাওয়া সংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহের কাজে ব্যবহৃত হয়। বেলুনে বেঁধে তা উড়িয়ে দেওয়া হয়। জিপিএস প্রযুক্তির মাধ্যমে যন্ত্র থেকে পাওয়া তথ্য সংগ্রহ করা হয়। পুলিশের সঙ্গে আলোচনা করে ওই যন্ত্র সংগ্রহ করে নিয়ে যান তাঁরা।