এসএসকেএমে কুকুরের ডায়ালিসিসের ব্য়বস্থা করে সাধারণ রোগীদের জীবন বিপন্ন করেছিলেন যে নির্মল মাজি, তিনিই এবার করোনা নিয়ে তাঁর নির্মল-বাণী শোনালেন।

রবিবাসরীয় সকালে উলুবেড়িয়ায় এসে রাজ্য়ের শ্রম দফতরের রাষ্ট্রমন্ত্রী তথা আইএমএ-র রাজ্য় সভাপতি পরামর্শ দিলেন, 'ষোলোআনা বাঙালিয়ানা' ফিরিয়ে আনতে হবে। তাঁর কথায়, "বাঙালিরা এখন বিদেশি রীতিনিতি অনুযায়ী করমর্দন ও হস্ত চুম্বনে অভ্য়স্ত হয়ে পড়েছে। এতে করে করোনা ভাইরাস সংক্রামিত হতে পারে। তাই বিদেশি সংস্কৃতির করমর্দন বা হস্ত চুম্বনের পরিবর্তে শুভাকাঙ্খীদের হাত জোড় করে সম্ভাষণ করুন। তাতে করে এই ভাইরাস সংক্রামিত হওয়ার সম্ভাবনা প্রায় নেই বললেই চলে।"

রবিবার আমতায় এক দলীয় কর্মসূচিতে  এসেছিলেন শাসকদলের এই চিকিৎসক নেতা। সেখানেই তিনি এক সাংবাদিক সম্মেলন করে বলেন, করোনা নিয়ে আতঙ্কের কিছু নেই। তাঁর কথায়,  "এদেশে ১৩০ কোটি মানুষের মধ্য়ে এখনও পর্যন্ত মাত্র দুজনের মৃত্য়ু হয়েছে এই সংক্রমণে। কিছু বিধিনিষেধ মেনে চলতে পারলেই করোনাকে প্রতিরোধ করা দরকার। তাঁর পরামর্শ, শাকসবজি ভিজিয়ে রাখার পর ভাল করে সেদ্ধ করে খান। হাত থেকে কনুই  পর্যন্ত ভাল করে সাবান দিয়ে ধোন। চিন্তা করবেন না। রাজ্য়ে করোনা সংক্রমণ মোকাবিলার উপযুক্ত ব্য়বস্থা রয়েছে। প্রত্য়েকটা বড় হাসপাতালে পুরুষ ও মহিলাদের জন্য় দশটি করে শয্য়া সংরক্ষিত রয়েছে। এছাড়াও দশটি করে  ইনটেনসিভ থেরাপিউটিক ইউনিট রাখা আছে।" নির্মল মাজির দাবি, সাংবাদিকদেরও এগিয়ে আসতে হবে। যাতে করে অহেতুক আতঙ্ক না-ছড়ায় আর মানুষ সচেতন।