ইছাপুর স্টেশনে সিগনালিং ব্য়বস্থা ঢেলে সাজানোয় এমনিতেই ৪৯টি ট্রেন বাতিল হয়েছে শিয়ালদহ শাখায়। সোমবার সপ্তাহের শুরুতে কাঁচরাপাড়ায় প্যান্টোগ্রাফ ভেঙে পড়ায় আরও দুর্ভোগে পড়ল শিয়ালদহ শাখার যাত্রীরা। ইতিমধ্য়েই যাত্রী চলাচল স্বাভাবিক করতে যুদ্ধকালীন  তৎপড়তায় শুরু হয়েছে কাজ। 

সিগনালিং ব্যবস্থা ঢেলে সাজানোয় ইতিমধ্য়েই শিয়ালদহ মেন লাইনে বাতিল হয়েছে একাধিক লোকাল ট্রেন ৷ সোমবার সকালে থেকেই আরও  দুর্ভোগে পড়ল যাত্রীরা। কাঁচড়াপাড়া স্টেশনের প্যান্টোগ্রাফ ভেঙে পড়ায় আটকে গেল শিয়ালদহ মেন শাখার একাধিক ট্রেন চলাচল ৷ যদিও পূর্ব রেলের তরফে জানা গিয়েছে, প্যান্টোগ্রাফ দ্রুত সাড়াই করতে কাজ শুরু করে দিয়েছেন রেলের ইঞ্জিনিয়াররা ৷

অটো সিগনালিংয়ের কাজের জন্য আপ-ডাউন ৪৯টি ট্রেন বাতিল করা হয়েছে গতকাল থেকে ৷ ১৬ ফেব্রুয়ারি সকাল ১০টা পর্যন্ত চলবে সিগন্যালিংয়ের কাজ ৷ আজ আপ ও ডাউন মিলিয়ে ৪৯টি ট্রেন বাতিল হয়েছে। যার মধ্য়ে রয়েছে ৪টি শিয়ালদহ-রানাঘাট লোকাল। ২টি শিয়ালদহ-কৃষ্ণনগর লোকাল, ২৬টি শিয়ালদহ-নৈহাটি লোকাল, ১৪টি শিয়ালদহ-কল্যাণী সীমান্ত লোকল-সহ মেন লাইনের বেশ কিছু ট্রেন ৷

এ বিষয়ে পূর্ব রেলের তরফে জানানো হয়েছে, পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে এই কদিন গ্যালপিং ট্রেন সব স্টেশনে থামবে ৷ শুধু লোকাল নয়, ব্যাহত হবে এক্সপ্রেস ট্রেন পরিষেবাও ৷ এই সময়ের মধ্যে কলকাতা-পটনা এক্সপ্রেস, গৌড় এক্সপ্রেস, গঙ্গাসাগর এক্সপ্রেস চলবে ঘুরপথে ৷ য়ার জেরে যাত্রাপথের হিসাবে  গন্তব্য়ে পৌঁছেতে বেসি সময় লাগবে যাত্রীদের।