চরম অমনাবিক ঘটনার সাক্ষী থাকল মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল। অসুস্থ স্বামীর সামনেই স্ত্রীকে শারীরিক হেনস্থা ও মারধরের অভিযোগ উঠল ডাক্তারের বিরুদ্ধে। ঘটনায় বিভদসতায় হাসপাতালের বেডেই মৃত্যু হল যন্ত্রণাকাতর ব্যক্তির। এই ঘটনা চাউর হওয়ার পর থেকেই চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে হাসপাতাল  সহ আশপাশেপ চত্বরে। প্রতিবাদে হাসপাতাল চত্বরে বিক্ষোভও দেখা মৃতের স্ত্রী সহ পরিবারের লোকেরা। যদিও অভিযোগ অস্বীকার করেঠে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, উচ্চ সুগার সহ নানা শারীরিক সমস্যা নিয়ে মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হন ইসলামপুরের হড়হড়ি গ্রামের বাসিন্দা সুরাবউদ্দিন। অসুস্থ স্বামীকে দেখভালের জন্য পাশেই বসে থাকতেন তার স্ত্রী ফিরোজা বিবি। অভিযোগ, চিকিৎসক ডাঃ অর্ঘ্যদীপ রোগীর বেডের পাশে তার স্ত্রীকে বসে থাকতে দেখে ফিরোজা বিবিকে অকথ্য় ভাষায় অপমান করে। প্রতিবাদ করায় তাকে মারধরও করা হয় বলে অভিযোগ। অসুস্থ স্বামীর সামনে তার স্ত্রীকে এইভাবে হেনস্থা ও মারধর করতে দেখে আরোও বেশি বিচলিত হয়ে পড়েন সুরাবউদ্দিন। ফলে তার শারীরিক অবস্থার আরোও অবনতি ঘটে। আরও চাঞ্চল্যকর অভিযোগ, ওই মুহূর্তে তার স্বামীর মুখ থেকে অক্সিজেন মাস্ক খুলে দেন সেখানে থাকা কর্তব্যরত নার্সেরা। এর ফলে মুহূর্তের মধ্যেই চোখের সামনে কাতরাতে কাতরাতে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন সুরাবউদ্দিন।

এই ঘটনা জানাজানি হতেই নিন্দার ঝড় ওঠে সর্বত্র। অভিযুক্ত চিকিৎসকের শাস্তির দাবিতে হাসপাতালে বাইরে বিক্ষোভও দেখান মৃতের স্ত্রী ও পরিবারের লোকেরা। যদিও হাসপাতালের তরফ থেকে যাবতীয় অভিযোগ নস্যাৎ করা হয়েছে। মুর্শিদাবাদ জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক প্রশান্ত বিশ্বাস জানান, 'এই বিষয়টি এখনোও আমাদের কাছে লিখিত আকারে কেউ জানায়নি। অভিযোগ জানানো হলে পুরো বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে খতিয়ে দেখা হবে'। কিন্তু এমন অমানবিক ঘটনা শুনে বাকরুদ্ধ সকলেই।