শীতের বিদায়লগ্নে বর্ণময় সৌন্দর্যের ডালি নিয়ে বসন্ত জাগ্রত দ্বারে। প্রকৃতির এই মনোরম পরিবেশে মন উধাও হতে চায় নিরুদ্দেশে। সঙ্গে পিকনিকের অমোঘ হাতছানি। 

কিন্তু ইচ্ছে থাকলেই তো আর সবসময় সাধপূরণ হয়না। বিশেষ সরকারি প্রাথমিক স্কুলের পড়ুয়াদের অধিকাংশই নিম্নবিত্ত পরিবারের থেকে এলে পিকনিকে যাওয়া রীতিমতো বিলাসিতা। সেকথা মাথায় রেখেই পড়ুয়াদের আব্দার মেনে এবারে স্কুলেই পিকনিকের আসর বসাল রায়গঞ্জের পার্বতীদেবী জি এস এফ পি স্কুল কর্তৃপক্ষ। 

মিড ডে মিলে ঘুরেফিরে হয় খিচুড়ি- সবজি নয়তো ডিম ভাত হয়ই। একসঙ্গে খেতেও বসে পড়ুয়ারা। কিন্তু শুক্রবারটা যেন ছিল এক্কেবারে অন্যরকম। পড়াশোনার চাপ সরিয়ে চেনা স্কুলের মধ্যেই সকাল থেকে নিখাদ আনন্দ ভাগ করে নিল কচিকাঁচারা। বেলা বাড়তেই ধোঁয়া ওঠা গরম ভাত, সঙ্গে কষা মাংস আর চাটনি দিয়ে মধ্যাহ্নভোজ। রান্নার কাজে রন্ধন কর্মীদের পাশাপাশি হাত লাগালেন শিক্ষক-শিক্ষিকারাও। 

পিকনিকের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে স্কুল ড্রেস নয়, ছিল পড়ুয়াদের পছন্দের রকমারি জামাকাপড়। সবমিলিয়ে সারাটা সকাল একঝাঁক প্রজাপতির মতো অনাবিল আনন্দে মেতে উঠলো সরকারি প্রাথমিক স্কুলের খুদে ছাত্র-ছাত্রীরা। ছাত্রছাত্রীদের এই আনন্দ দেখে তৃপ্ত স্কুলের শিক্ষক- শিক্ষিকারা।