বিশ্বভারতীর শতবর্ষ উদযাপনে অংশ নিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। বৃহস্পতিবার ভার্চুয়াল ভাষণে বোলপুর-শান্তিনিকেতনের গরীব শিল্পীরদের কাজ নিয়ে কথা বললেন মোদী। কীভাবে তা বিশ্বের দরবারে বিক্রয়যোগ্য করে তোলা যায়, সেবিষয়ে সবাইকে আহ্বান জানালেন তিনি।

 

আরও পড়ুন, 'স্বাধীনতা সংগ্রামে শক্তি যুগিয়েছে রবীন্দ্রসঙ্গীত', বিশ্বভারতীর ভূমিকায় প্রশংসায় পঞ্চমুখ মোদী

 

 

প্রসঙ্গত,  বাংলায় করোনা পরিস্থিতির জন্য একেই এবছরের পৌষ মেলা বাতিল করা হয়েছে। এদিকে এই শীতকালেই বাংলা তথা বিশ্বের অসংখ্য মানুষ শান্তিনিকেতনে এসে ভীড় জমান। আর তাঁদের কাছে অসাধারণ সুন্দর হাতে বানানো ছবি থেকে ব্যাগ সকল ধরণের শিল্প কলা পৌষ মেলায় তুলে ধরেন শিল্পী তথা বিক্রেতারা। বলা ভাল এক্ষেত্রে শিল্পী অধিকাংশ ক্ষেত্রে বিক্রেতা। সারাবছরের এই সময়টায় বিক্রি করে দিন গুজরান শান্তিনিকেতনের গরীব শিল্পীরা। এদিকে এবছর কোভিডের জন্য সেই সুযোগও নেই। তাই তাঁদের রোজগারের সুযোগ করে দিতে কীভাবে তা বিশ্বের দরবারে বিক্রয়যোগ্য করে তোলা যায়, সেবিষয়ে সবাইকে আহ্বান জানালেন তিনি।

আরও পড়ুন, 'বিশ্বভারতীতে মমতাকে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি', বড়সড় অভিযোগ আনলেন ব্রাত্য

 

বৃহস্পতিবার বিশ্বভারতীর শতবর্ষ উদযাপনে অংশ ভাষণ দেন মোদী। তিনি বলেন, সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে বোলপুর-শান্তিনিকেতনের গরীব শিল্পীরদের কাজ বিশ্বদরবারে কীভাবে বিক্রয়যোগ্য করে তোলা যায়, তার পরিকল্পনা নেওয়া হোক। অনলাইন প্লাটফর্মের মাধ্যমে দেশীয় শিল্পের মান বৃদ্ধি সেই সঙ্গে আন্তর্জাতিক মানে পৌছে নিয়ে গেলেই তা ক্রমশ আরও আকর্ষণীয় হয়ে উঠবে, তারই আভাষ দেন মোদী।