রাজনীতির ময়দানে দু'জনে একে অপরের প্রবল প্রতিপক্ষ। বিহার নির্বাচনী প্রচারের ফাঁকে কয়েক ঘণ্টার ব্য়বধানে বাংলায় হাজির হলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। পূর্ব নির্ধারিত কর্মসূচি মেনেই প্রধানমন্ত্রী দিল্লি ফিরে গেলেও. রাহুল রাত কাটালেন উত্তরবঙ্গের সুকনায়।

আরও পড়ুন: অনুব্রতের খাসতালুকে শুভেন্দুর নাম পোস্টার অনুগামীদের, অস্বস্তিতে বাড়ল তৃণমূলের

তৃতীয় দফায় ভোটের আগে ফের বিহারে নির্বাচনী প্রচারে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। মঙ্গলবার তাঁর জনসভা ছিল ফরবেশগঞ্জে। সকালে গন্তব্যে যাওয়ার পথে প্রধানমন্ত্রীর চপার নামে শিলিগুড়ির বাগডোগরা বিমানবন্দরে। বিমানবন্দরে তাঁকে স্বাগত জানান কোচবিহারের বিজেপি সাংসদ নিশীথ প্রামাণিক, জলপাইগুড়ির জয়ন্ত রায়, বালুরঘাটের সুকান্ত মজুমদার। মিনিট পনেরো তাঁদের সঙ্গে কথা বলার পর পর মোদী উড়ে যান সভাস্থলের উদ্দেশ্যে। সূত্রের খবর, বিধানসভা ভোটে উত্তরবঙ্গে যে ভালো চান, বিজেপি সাংসদদের সেই ইঙ্গিত দিয়ে গিয়েছে মোদী। রাজ্যে দলের কর্মীদের খুন হওয়া নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাল্টা নালিশ জানিয়েছেন সাংসদরাও।

আরও পড়ুন: বিহারের পর বিজেপির টার্গেট বাংলা, চলতি সপ্তাহে দুদিনের সফরে রাজ্যে আসছেন অমিত শাহ

এদিকে প্রধানমন্ত্রীর প্রায় ঘণ্টা খানেক পর বাগডোগরা বিমানবন্দরে পৌঁছন রাহুল গান্ধিও। বিহারের বেশ কয়েকটি জায়গায় নির্বাচনী জনসভা করতে যাচ্ছিলেন তিনিও। মঙ্গলবার বিকেলে যখন বাগডোগরা বিমানবন্দর হয়ে প্রধানমন্ত্রী যখন দিল্লি উদ্দেশ্যে রওনা দেন, তখন রাহুল গান্ধি ফিরে আসেন উত্তরবঙ্গেই। রাতে তিনি ছিলেন শিলিগুড়ি লাগোয়া সুকনা।