বাইরে থেকে দেখে মনে হতো অ্যাম্বুল্যান্সে করে হয়তো কোনও রোগীকে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। কিন্তু আসলে অ্যাম্বুল্যান্সের মধ্যে থাকত সশস্ত্র ডাকাত দল। অ্য়াম্বুল্যান্সে করে ডাকাতি করার এই অভিনব ছক ভেস্তে দিল পুলিশ। এক অভিযুক্তকে পুলিশ হাতেনাতে ধরে ফেললেও পালিয়ে যায় বাকিরা। 

বৃহস্পতিবার রাতে পশ্চিম বর্ধমান জেলার কাঁকসা থানার পুলিস মলানদীঘি এলাকা থেকে অ্যাম্বুল্যান্সে করে ডাকাতি করতে আসা এক দুষ্কৃতীকে গ্রেফতার করে। ধৃত দুষ্কৃতীর নাম সঞ্জয় সিং। অভিযোগ দীর্ঘদিন ধরেই পণ্যবাহী ট্রাক-সহ অন্যান্য যানবাহন থেকে অ্যাম্বুল্যান্স নিয়ে লুঠপাট চালাতো ওই দুষ্কৃতীরা। বহু ট্রাক চালকের কাছ থেকেই ওই দুষ্কৃতী দলটির বিরুদ্ধে অভিযোগ পেয়েছিল পুলিশ। অভিযোগ, অ্যাম্বুল্যান্স নিয়ে একদল দুষ্কৃতী রাতের বেলা ওই রাস্তা দিয়ে যাতায়াতকারী গাড়ি আটকে সর্বস্ব লুঠ করতো।প্রথমে তারা গাড়ির কাচ ভেঙে দিত। এর ফলে চালক গাড়ি দাঁড় করালেই তারা লুটপাট চালাতো।

বৃহস্পতিবার রাতে কাঁকসা থানার পুলিশ গোপন সূত্রে খবর পেয়ে জাঠগড়িয়া মোড়ে অভিযান চালায়। ঘটনাস্থলে গিয়ে একদল দুষ্কৃতীকে রাস্তার পাশের জঙ্গল দিয়ে পালিয়ে যেতে দেখে। সেখান থেকেই একজন দুস্কৃতীকে পুলিশ গ্রেফতার করে। পুলিশ জানিয়েছে, ওই দিন ৭ জন দুষ্কৃতী মুচিপাড়া - শিবপুর রাস্তায় অ্যাম্বুল্যান্স নিয়ে ডাকাতির উদ্দেশ্য এসেছিল।
 ঘটনাস্থল থেকে অ্যাম্বুল্যান্সটিকেও আটক করে পুলিশ। শুক্রবার  ত দুষ্কৃতীকে দুর্গাপুর মহকুমা আদালতে পেশ করলে বিচারক তাকে ৫ দিনের পুলিশি হেফাজতে নিয়ে ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দেন। ধৃতকে জেরা করে বাকিদের খোঁজে তল্লাশি শুরু হয়েছে।