ফের মধুচক্রের পর্দাফাঁস। এবার উত্তর ২৪ পরগণায় নৈহাটিতে। কল্য়াণী এক্সপ্রেসওয়ে ধারে একটি হোটেল অভিযান চালিয়ে ২২ জন মহিলা ও ৫ পুরুষকে হাতেনাতে ধরে ফেলল পুলিশ। গ্রেফতার হোটেলের মালিক ও ম্যানেজারও। 

আরও পড়ুন: বাবা আমি ঝাঁপ দিচ্ছি, ভিডিওকলে জানিয়ে আত্মঘাতী যাদবপুরের মেধাবী ছাত্র

কখনও হোটেল, কখনও আবার স্পা, রাজ্যের বিভিন্ন জনবসতি এলাকায় এখন রমরমিয়ে চলছে দেহব্যবসা। উত্তর ২৪ পরগণায় নৈহাটিতে কল্যাণী এক্সপ্রেসওয়ে-এর ধারে ছোট-বড় মিলিয়ে হোটেলের সংখ্যা কম নয়। রাত নামলেই সেখানকার একটি নামী হোটেলে বসত মধুচক্রের আসর। বেআইনি কারবার খবর কিন্তু চাপা থাকে না। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার গভীর রাতে ওই হোটেলে অভিযান চালান ব্যারাকপুর পুলিশ কমিশনারেটের আধিকারীরা। আপত্তিকর অবস্থায় ধরা পড়ে ২২ জন মহিলা ও ৫ জন পুরুষ। ধৃতদের মধ্যে বেশ কয়েকজন কলেজ ছাত্রীও আছে বলে জানা গিয়েছে। মধুচক্র চালানোর অভিযোগে হোটোলের মালিক ও ম্যানেজারকেও গ্রেফতার করেছে পুলিশ। 

আরও পড়ুন: জাঁকিয়ে শীত রাজ্যে, আগামী ৪৮ ঘন্টায় শৈত্য প্রবাহের সতর্কতা জারি

উল্লেখ্য, দিন কয়েক আগে কলকাতায় চারটি জায়গায় অভিযান চালিয়ে মধুচক্রের হদিশ পায় পুলিশের অ্যান্টি হিউম্যান  ট্রাফিকিং ইউনিট।  বিউটি পার্লার ও স্পা-এর আড়ালে দেহব্যবসা  চলছিল বলে জানা গিয়েছে।  এই চক্রের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে বিউটি পার্লারের মালিক ও দালাল ৩০ জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।  উদ্ধার করা হয় যৌনকর্মীদেরও।  সত্যি কথা বলতে, কলকাতায় দেহব্যবসা বা মধুচক্র নতুন কিছু নয়। কিন্তু আগে  শুধুমাত্র শহরের নির্দিষ্ট কয়েকটি জায়গাতেই এই কারবার চলত।  এখন শহরের বিভিন্ন প্রান্তে, এমনকী লোকালয়ে মধুচক্রের রমরমা বাড়ছে।