উত্তম দত্ত, হুগলি-বিজেপির থানা ঘেরাও কর্মসূচি ঘিরে রণক্ষেত্রের চেহারা নিল হুগলির রিষড়া। 'জয় শ্রীরাম' ধ্বনি তুলে রিষড়া থানা চত্বরে বিক্ষোভ দেখান বিজেপি কর্মী সমর্থকরা। করোনা আবহে বিজেপির জমায়েত নিয়ে তীব্র আপত্তি তোলে পুলিশ। পুলিশের সঙ্গে বচসা চলাকালীন পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। বিজেপি কর্মীদের সামাল দিতে লাঠি চালায় পুলিশ। 

আরও পড়ুন-'পুজোয় অনুদানের ২৫ শতাংশ জনসংযোগে, ৭৫ শতাংশ মাস্ক-স্যানিটাইজারে খরচ করতে হবে, মামলায় নির্দেশ হাইকোর্

কেন বিজেপি থানা ঘেরাও?

জানাগেছে, দিন কয়েক আগে রিষড়া থানা এলাকায় আর্থিক কেলেঙ্কারিতে অভিযুক্ত সংস্থা সারদা গোষ্ঠীর একটি বন্ধ অফিস খুলে পরিষ্কার করতে দেখা যায়। স্থানীয় বিজেপি কর্মীরা দেখতে পেয়ে আপত্তি করে। ওই অফিসে গিয়ে বিক্ষোভ দেখান বিজেপি কর্মী সমর্থকরা। তাঁদের দাবি, সারদা মামলা এখনও আদালতের বিচারাধীন। তার অফিস খুলে গোরন নথি সরানো হচ্ছে বলে অভিযোগ বিজেপির। শুক্রবার সকালে বিজেপি মহিলা মোর্তার সভানেত্রী শশী সিং ও স্থানীয় নেতা বিজয় পাণ্ডের নেতৃত্বে রিষড়া থানায় জবাব চাইতে যায় বিজেপি কর্মী সমর্থকরা।

অভিযোগ, যখন বিজেপি দুই নেতা ওসির ঘরে ডেপুটেশন দিতে যায়, পুলিশ তখন বিজেপি কর্মীদের লাঠিচার্জ করে হটিয়ে দেয়। এই বিষয়ে চন্দনগর পুলিশ কমিশনারেটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বিজয়কৃষ্ণ মণ্ডল জানান, ''করোনা মহামারির আবহে বেআইনিভাবে জমায়েত করেছেন বিজেপি কর্মী সমর্থকরা। তাছাড়া, এমন কিছু ঘটনা ঘটেনি যে ওই এলাকায় প্রশাসনিক অফিস স্তব্ধ করে দিতে হবে। তাই থানার সামনে মিছিলকে হটিয়ে দেওয়া হয়েছে''। অন্যদিকে, বিজেপি নেত্রী শশী সিংয়ের দাবি, ''আমরা শান্তিপূর্ণভাবে বিক্ষোভ মিছিল করছিলাম। কিন্তু পুলিশ বিনা প্রোরোচনায় আমাদের কর্মীর উপর লাঠি চালিয়েছে। আমাদের অসংখ্য কর্মীকে আহত করেছেন। তবে আমাদের আন্দোলন চলবে''।