ছেলেধরা গুজব বন্ধে এবার ময়দানে নামল পুলিশ। আর যে ছেলেমেয়েদের ধরে নিয়ে যাওয়ার ভয়ে ছেলেধরা গুজব ছড়াচ্ছে, সেই স্কুলপড়ুয়াদেরকেই ছেলেধরা গুজব ঠেকাতে অস্ত্র করছে পুরুলিয়া জেলা পুলিশ। একই সঙ্গে ছেলেধরা গুজব 
ঠেকাতে কাজে লাগানো হচ্ছে স্কুলের শিক্ষক- শিক্ষিকাদেরও।  

রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তের মতো পুরুলিয়াতেও ছেলেধরা গুজবে আতঙ্ক ছড়িয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় ছেলেধরার গুজবে ভাইরাল হচ্ছে একের পর এক ভিডিও । আতঙ্ক এতটাই ছড়িয়েছে যে স্কুল বা টিউশন যেতে ভয় পাচ্ছে ছাত্রছাত্রীরা। ফলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলিতে কমছে ছাত্র-ছাত্রীদের উপস্থিতি। আতঙ্কে রয়েছেন অভিভাবকরাও। কিন্তু বাস্তবে ছেলেধরা গুজব যে আদৌ সত্যি নয়, তা বোঝাতে এবার প্রচারে নামলো পুরুলিয়া জেলা পুলিশ l

শনিবার বেশ কয়েকটি বিদ্যালয়ের ছাত্রীদের নিয়ে পুরুলিয়া থানায় একটি কর্মশালার আয়োজন করে পুলিশ। এ দিনের কর্মশালায় ছেলেধরা নিয়ে কোনও গুজবে কান না দেওয়ার জন্য ছাত্রছাত্রীদের বোঝানো। পড়ুয়ারাই যাতে অভিভাবকদেরও এই জিনিসটি বোঝায়, সেই অনুরোধও করা হয় পুলিশের তরফে। পাশাপাশি ছাত্রছাত্রী এবং অভিভাবকদের বোঝানোর জন্য শিক্ষক- শিক্ষিকাদেরও এগিয়ে আসতে অনুরোধ করা হয়। 

গণপিটুনি রোধে কড়া ব্যবস্থা নিয়েছে রাজ্য সরকার। বিধানসভায় পাশ হয়েছে নতুন আইন। তার পরেও আসানসোল, জলপাইগুড়ির মতো বিভিন্ন জায়গায় গণপিটুনিতে মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ, প্রশাসন বার বার প্রচার করলেও কাজের কাজ হচ্ছে না। এবার তাই ছেলেধরা গুজব ঠেকাতে স্কুল পড়ুয়াদেরই সাহায্য নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিল পুরুলিয়া জেলা পুলিশ। 

এ দিন পুলিশের তরফে ছাত্র-ছাত্রী এবং অভিভাবকদের বোঝানো হয়, ছেলেধরা গুজবে কান না দিতে। যদি কোনও সমস্যা হ,য় তাহলে সরাসরি পুলিশকে খবর দেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়।