শুক্রবার রায়গঞ্জের সরকারি স্কুলগুলোতে পঠনপাঠন শুরু। বাংলা জুড়ে বামেদের ডাকা বনধে বিপর্যস্ত পরিবহণ পরিষেবা। তবে সেসব কিছুকেই বুড়ো আঙুল দেখিয়ে স্কুলের স্বাদ দিতে একদম নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যেই স্কুলে উপস্থিত  ছাত্রছাত্রীরা।

আরও পড়ুন, বনধের জেরে বিপর্যস্ত শিয়ালদহের সব শাখায় ট্রেন চলাচল, চরম ভোগান্তিতে যাত্রীরা 

 

 

 করোনা আবহের পর দীর্ঘ প্রায় ১১ মাস পরে সরকারি নির্দেশিকা মেনে রাজ্যের অন্যান্য জায়গার পাশাপাশি রায়গঞ্জ শহরেও সরকারি স্কুলগুলোতে পঠনপাঠন শুরু করা হয় এদিন। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যেই ছাত্রছাত্রীরা স্কুলে এসে উপস্থিত হয়।মাস্ক পড়ে থাকা বাধ্যতামূলক।ছাত্রছাত্রীদের হাত স্যানিটাইজড করে, থার্মাল গান দিয়ে তাদের টেম্পারেচার মেপে স্কুলে ঢোকার ব্যবস্থা করে স্কুল কতৃপক্ষ। মোট ছাত্রছাত্রীদের কয়েকটি সেকশনে ভাগ করে সামাজিক দূরত্ব মেনে বসানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে। এতদিন পরে স্কুল শুরু হওয়ায় স্বাভাবিকভাবেই খুশি ছাত্রছাত্রী ও শিক্ষকরা।

আরও দেখুন, আজ বামদের ডাকা ১২ ঘন্টার বাংলা বনধে প্রভাব সর্বত্র, বন্ধ পরিষেবা, দেখুন ছবি 

 

 

 

প্রসঙ্গত, বামেদের নবান্ন অভিযানে পুলিশি নির্যাতনের প্রতিবাদে শুক্রবার ১২ ঘন্টার বনধ ঘোষণা করেছে বাম যুব ছাত্র সংগঠন। এদিকে তারই মাঝে খোলা রাখতে হবে স্কুল, এমনই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে সরকারের পক্ষ থেকে। আগাম নির্দেশিকায় জানানো হয়েছে,নির্দিষ্ট সময়ের পূর্বেই শিক্ষকদের হাজির হতে হবে স্কুলে।  সরকারের এই সকল নির্দেশ মেনেই শুক্রবার সাতসকালেই খুলল রাজ্যের স্কুল।