সালিশি সভা শেষে বাড়ি ফেরার পথে অটো বাইকের মুখোমুখি সংঘর্ষে মৃত্যু হল তিনজনের। ঘটনায় গুরুতর জখম আরও প্রায় পাঁচজন। তাঁদের মধ্যে দু' জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। বর্তমানে তাঁরা মালদহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। 

শুক্রবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে বামনগোলা থানার পাওলডাঙা এলাকাj পাকুয়া গাজোল রাজ্য সড়কের উপরে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় বামনগোলা থানার পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, সংঘর্ষের জেরে বাইক চালক ও অটোর দুই যাত্রীর মৃত্যু হয়েছে।  মৃতদের মধ্যে অন্যতম বাইক চালক শুভ বৈশ্য মালি(১৯)। তাঁর বাড়ি বামনগোলার উত্তরলক্ষীপুরে। মৃত দুই অটো যাত্রীর নাম চরণ মন্ডল(৭০) ও তমেশ্বর মৃধা(৪৮)। দু' জনের বাড়ি গাজল থানার দেওতলায়। বাকিরা আশঙ্কাজনক আবস্থায় মালদহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল ও স্থানীয় প্রাথমিক চিকিৎসা কেন্দ্রে ভর্তি রয়েছেন।

জানা গিয়েছে, শুক্রবার গাজোলের দেওতলা থেকে বামনগোলার পাকুয়াহাট ডাঙাপাড়ায় মেয়ে জামাইয়ের পারিবারিক বিবাদের সালিশি করতে আসে মেয়ের পরিবারের লোকেরা। একটি অটো ভাড়া করে প্রায় সাত জন আসেন। সালিশি শেষে সন্ধ্যায় পাকুয়াহাট থেকে গাজোল যাচ্ছিল অটোটি। ফেরার পথে চালক দ্রুত গতিতে চালাচ্ছিলেন। যাত্রীরা তাঁকে একাধিকবার বারণও করে। বামনগোলার পাওলডাঙা এলাকায় হঠাৎ উল্টোদিক থেকে আসা একটি বাইকের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ বাধে অটোর সংঘর্ষের জেরে উল্টে যায় বাইক ও অটো।

অটোর নীচে চাপা পড়ে যান যাত্রীরা। তড়িঘড়ি স্থানীয়রা জখমদের উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে পাঠায়। তাঁদের মধ্যে বেশ কয়েক জনকে আবস্থা আশঙ্কাজনক থাকায় মালদহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাতে তিনজনের মৃত্যু হয়। দুর্ঘটনাগ্রস্ত গাড়ি দু' টি উদ্ধার করে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে। ঘটনার তদন্তে নেমেছে পুলিশ।