বাড়ি জুড়ে বিভিন্ন সমাজ-সচেতনতামূলক পোস্টার। বোনের বিয়ের আসরে আমন্ত্রিতদের হাতে চারাগাছ তুলে দিলেন এক যুবক। অভিনব কাণ্ড বীরভূমের নলহাটিতে।

আরও পড়ুন: বিয়ের মণ্ডপে সবুজায়নের শিক্ষা, চার হাত এক করল চারাগাছ

নলহাটির বাউটিয়া গ্রাম থাকতেন লিপ্টন চট্টোপাধ্যায়। প্রয়াত এই মৃৎশিল্পীর দুই ছেলে-মেয়ে। গ্রামে বাড়িতে ধুমধাম করেই বিয়ে হল তাঁর ছোট মেয়ের। আমন্ত্রিত ছিলেন ছ'শো জন অতিথি। ভুরিভোজের আয়োজন তো ছিলই, খাবার টেবিলে বসার পর আমন্ত্রিতদের হাতে  আম, জাম, কাঁঠাল, শিশু, সেগুন, সোনাঝুরি গাছের চারা তুলে দিলেন পাত্রীর দাদা সামু চট্টোপাধ্যায়। বরযাত্রীদের চারা গাছ উপহার দিলেন পাত্রী নিজেই। শুধু তাই নয়, অভিনবত্ব ছিল বিয়ের মণ্ডপেও। 'সেফ লাইভ, সেভ ড্রাইভ', কন্যাভ্রুনকে বাঁচিয়ে রক্ষার বার্তা-সহ বিভিন্ন সমাজ সচেতনতামূলক পোস্টার লাগানো হয় সর্বত্রই।  বিয়ের অনুষ্ঠানে কেন এমন আয়োজন? পাত্রীর দাদা সামু চট্টোপাধ্যায়ের বক্তব্য, পরিবেশ দূষণের কারণে প্রকৃতির ভারসাম্য নষ্ট হচ্ছে, বদলে যাচ্ছে ঋতুচক্রও। মানুষকে গাছ লাগানোর জন্য উৎসাহিত করতেই বোনের বিয়েতে অতিথিদের চারাগাছ বিতরণ করেছেন তিনি। এদিকে বিয়ের আসরে যে এমন চমক থাকবে, তা ভাবতেই পারেননি পাত্র শুভদীপ রায়। অভিভূত তিনি।

আরও পড়ুন: পুরভোটের আগেই নিমতায় অস্ত্র কারখানার হদিশ, গ্রেফতার

উল্লেখ্য,  দিন কয়েক আগে বর্ধমানে বর্ধমান গাছকে সাক্ষী করেই বিয়ে করেছিলেন এক দম্পতি। পুরোহিত মন্ত্রোচ্চারণের পর, চারহাত এক হওয়ার আগে, একে-অপরের হাতে মেহগনি গাছে চারা তুলে দিয়েছিলেন পাত্র ও পাত্রী। চারা গাছ বিতরণ করা হয়েছিল বারোশোজন অতিথিকেও।