ড্রেস কোড না মানায় স্কুলেই চরম হেনস্থার মুখে পড়েছে ছাত্রীরা। বোলপুরে একটি বেসরকারি ইংরেজি মাধ্য়ম স্কুলের অধ্যক্ষকে সরানোর দাবিতে অনড় অভিভাবকরা।  শুক্রবার  স্কুল কর্তৃপক্ষ ও অভিভাবকদের সঙ্গে বৈঠক করলেন মহকুমাশাসক। কিন্তু সমাধানসূত্র মিলল না। বীরভূমের জেলাশাসক সবটা লিখিতভাবে জানানো হবে বলে জানিয়েছেন বোলপুরের মহকুমাশাসক অভ্র অধিকারী।

ঘটনার সূত্রপাত গত সোমবার। সেদিন বোলপুরের একটি বেসরকারি স্কুলে লেগিংস পরে গিয়েছিল কয়েকজন ছাত্রী। আর তা নিয়েই যত বিতর্ক। পড়ুয়াদের দাবি, ড্রেস কোড লঙ্ঘনের কারণ দেখিয়ে লেগিংস খুলে ফেলতে বলেন শিক্ষিকারা।  লেগিংস খুলে শিক্ষিকাদের দিয়েই দেয় তারা। স্কুল ছুটির পর লেগিংসগুলি ফেরতও দেওয়া হয়।  কেউ কেউ ফের লেগিংস পরেও নেয়।  জানা গিয়েছে,  কয়েক জন ছাত্রী লেগিংস না পরেই বাড়ি চলে যায়।  মেয়ের নিম্নাঙ্গে পোশাক নেই দেখে হতবাক হয়ে যান অভিভাবকরা। ছাত্রীদের কাছ থেকে যখন ঘটনাটি জানতে পারেন, তখন যারপরনাই ক্ষুদ্ধ হন অভিভাবকরা।  এমনকী, ঘটনার দিন রাতেই স্কুল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে ছাত্রীদের অর্ধনগ্ন করে রাখার অভিযোগে বোলপুর থানায় এফআইআরও করেন তাঁরা। অভিভাবকদের দাবি, বোলপুরের ওই বেসরকারি ইংরেজি মাধ্যম স্কুলের অধ্যক্ষকে পদত্যাগ করতে হবে এবং এই ঘটনায় লিখিতভাবে ক্ষমা চাইতে হবে স্কুল কর্তৃপক্ষকে। ঘটনার শোরগোল পড়ে যায়।

 থানায় অভিযোগ দায়ের হওয়ার পর পুলিশের হস্তক্ষেপে বিষয়টি মিটিয়ে নিতে চেয়েছিল স্কুল কর্তৃপক্ষ।  অভিযুক্ত শিক্ষিকাদের চিহ্নিত করাই শুধু নয়, অভিভাবকদের কাছে ক্ষমা চেয়ে নিয়েছিলেন স্কুলের অধ্যক্ষা। কিন্তু নিজেদের দাবিতেই অনড় থাকেন অভিভাবকরা। তাঁদের প্রশ্ন, ড্রেস কোড না মানলে ছাত্রীদের বাড়িতে পাঠিয়ে দিতে পারত স্কুল কর্তৃপক্ষ। তা না করে করে লেগিংস খুলতে বলা হল? এই ঘটনার বেশ কয়েকজন ছাত্রী মানসিকভাবেও বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে বলে অভিযোগ।

শহরের ওই বেসরকারি স্কুলের অচলাবস্থা কাটাতে শুক্রবার নিজের দপ্তরে স্কুল কর্তৃপক্ষ, অভিভাবকদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন বোলপুরের মহকুমাশাসক অভ্র অধিকারী। বৈঠকে হাজির ছিলেন মহকুমা পুলিশ আধিকারিক, স্কুলের প্রাক্তন অধ্যক্ষ ও কয়েকজন শিক্ষিকা ও জনা পঁচিশেক অভিভাবক। কিন্তু এক  ঘণ্টার বৈঠকে কোনও সমাধান সূত্র মেলেনি। বোলপুরের মহকুমাশাসক অভ্র অধিকারী জানিয়েছেন, 'স্কুলটি বেসরকারি। আমরা সরাসরি হস্তক্ষেপ করতে পারব না। তবে বৈঠকে যা আলোচনা হয়েছে, তা লিখিতভাবে জেলাশাসককে জানানো হবে।' এদিকে শনিবার অর্থাৎ আগামীকাল স্কুল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। শনিবার যে পরীক্ষা হওয়ার কথা ছিল, তা সোমবার হবে জানানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, বোলপুরে বেসরকারি ইংরেজি মাধ্যম স্কুলে লেগিংস বিতর্কে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ও। ঘটনার সত্যতা যাচাই করতে স্কুলে সরকারি প্রতিনিধিদল পাঠানো হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।