দৌড়ঝাঁপ তো করতেই হয়। কিন্তু বেলাগাম ভুঁড়িভোজ আর স্বাস্থ্যের প্রতি উদাসীনতাতেই বেড়ে যাচ্ছিল ভুঁড়ি। পুলিশের ভুঁড়ি নিয়ে আমজনতার ঠাট্টা, তামাশাও নেহাত কম হয় না। এবার তাই অপরাধের সঙ্গে বাহিনীর সদস্যদের ভুঁড়ি কমানোর দিকেও নজর দিল মুর্শিদাবাদ জেলা পুলিশ। 

 ভুঁড়ি এবং ওজন কমানোর হিসেবনিকেশ রাখাতে পুলিশকর্মীদের স্মার্টওয়াচ দিল পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা পুলিশ। যার মাধ্যমে একজন পুলিশকর্মী দিনে কতটা পরিশ্রম করে নিজের শরীরের মেদ ঝরাতে পারলেন, তা নিজেই পরখ করে নিতে পারবেন। পুলিশ সুপার দীনেশ কুমার বলেন, 'পুলিশের মধ্যে যাদের শরীর স্থূল হয়ে পড়ে, তাঁদের বিরুদ্ধে অনেক সময়ই শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়ে থাকে। কিন্তু তাঁদের নতুন করে সুযোগ করে দেওয়ার জন্য ওই স্মার্টওয়াচ দেওয়া হচ্ছে। এতে নিজেদের স্বাস্থ্যের দিকে সহজেই নজর রাখতে পারবেন। প্রত্যেকেই নিজেকে ফিট রাখার জন্য পরিশ্রম করুন, ব্যায়াম করুন। আমরা মাসে মাসে এই ঘড়িগুলি পরীক্ষা করে বুঝতে পারব কে কতটা উন্নতি করলেন। ভাল ফল করলে পুলিশকর্মীদের পুরস্কৃতও করা হবে।'

আরও পড়ুন- বাড়ছে তল পেটের মেদ, রইল কমিয়ে ফেলার সহজ উপায়

আরও পড়ুন- ভারত-বাংলাদেশ ম্যাচে মহিলা পুলিশের শ্লীলতাহানি, হাজতে তিন

শুক্রবার ষাট  জনকে এধরনের স্মার্টওয়াচ প্রদান করা হয় এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে। জেলা পুলিশ লাইনে অনুষ্ঠিত ওই অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন আইজি পশ্চিমাঞ্চল রাজীব কুমার, ডিআইজি বর্ধমান রেঞ্জ ভরতলাল মীনা, ডিআইজি মেদিনীপুর রেঞ্জ সুকেশ জৈন, পুলিশ সুপার দীনেশ কুমার প্রমুখ।

উপরমহলের এই উদ্যোগে খুশি পুলিশকর্মীরাও। কিন্তু চোর, ডাকাত, অপরাধীদের পিছনে ছোটা বা নেতা মন্ত্রীদের অনুষ্ঠানে নিরাপত্তার ব্যবস্থা করে শারীরিক কসরতের সময় কীভাবে বের করবেন, তা নিয়েই খানিক চিন্তিত তাঁরা।