হস্টেলের ঘরে ডাক্তারি ছাত্রের রহস্য মৃত্যু। ঝুলন্ত অবস্থায় ওই ছাত্রের দেহ উদ্ধার করে পুলিশ। মেধাবী ছাত্রের মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ তাঁর বাবা-মা। ঘটনার জেরে শোকের ছায়া নেমে এসেছে গোটা গ্রামে। কলকাত ন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজের ছাত্র ছিল সে।

আরও পড়ুন-শ্বশুর বাড়িতে গিয়ে রহস্যজনক ভাবে নিখোঁজ, ২০ দিন পর ব্যক্তির পচাগলা দেহ উদ্ধার

জাানগেছে, দক্ষিণ ২৪ পরগনার গোসাবার বাসিন্দা ওই ছাত্র দিব্যেন্দু সর্দার। বুধবার সকালে কলকাতা ন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজের হস্টেলের ঘর থেকে ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়। ঘরের মধ্য়ে সিলিং ফ্য়ানে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মঘাতী হয় ওই ছাত্র। গোসাবার শম্ভুনগর গ্রাম পঞ্চায়েতের বাসিন্দা ওই ছাত্র। তাঁদের গ্রামে ছাত্র মৃত্যুর খবর পৌঁছতেই শোকের ছায়া।

আরও পড়ুন-করোনা আবহে ঢাকে পড়েনি পুজোর কাঠি, এবার পুজোয় মাছ-সবজি বিক্রি করছেন নদিয়ার ঢাকিরা

গ্রামবাসীদের দাবি, গ্রামের এই কৃতী ছাত্র কোনও ভাবেই আত্মহত্যা করতে পারে না। মাধ্যমিকে ভাল রেজাল্ট করেছিল দিব্যেন্দু। পরে উচ্চমাধ্য়মিকে ভাল ফল করার পল কলকাতায় ডাক্তারি পড়তে যায়। এদিন সকালে হস্টেলের ঘর থেকে তাঁর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়। তাঁর মৃত্যুর পিছনে অন্য কোনও কারন থাকতে পারে বলে মনে করছেন তাঁরা। পাশাপাশি, ঘটনায় পুলিশের পূণাঙ্গ তদন্ত দাবি জানিয়েছেন গ্রামবাসীরা। যদিও, কলকাতা ন্য়াশনাল মেডিক্যাল কলেজ থেকে মৃত্যুর সঠিক কারন সম্পর্কে কিছু জানা যায়নি।