দিনতিনেক আগেই রাজ্য় সরকার ঘোষণা করে দিয়েছে, করোনার প্রকোপ ঠেকাতে সতর্কতামূলক ব্য়বস্থা নিতে সোমবার থেকে রাজ্য়ের সমস্ত স্কুল বন্ধ থাকবে ৩১ মার্চ অবধি। তবু স্কুল বন্ধের আগের দিন রবিবার স্কুলে আসতে হল কালিয়াগঞ্জের পান্ডারা প্রাইমারি স্কুলের পড়ুয়াদের। উদ্দেশ্য়,  এলাকায় ঘুরে করোনা নিয়ে সচেতনতা প্রচার করা।

কালিয়াগঞ্জের বাংলাদেশ সীমান্ত ঘেঁষা এই প্রাথমিক স্কুলের ছোট্ট পড়ুয়াদের রবিবার দেখা গেল প্ল্য়াকার্ড হাতে। রবিবার বিকেলে স্কুলের ছোট্ট ছোট্ট পড়ুয়ারা মিছিল বের করল। করোনার হাত থেকে বাঁচতে কী কী করা উচিত, কী কী করা উচিত নয়, তা বাড়ি বাড়ি গিয়ে বোঝাল ছোট্ট পড়ুয়াদের দল। সঙ্গে থাকলেন শিক্ষক, শিক্ষিকারাও।  প্রধান শিক্ষক শুভব্রত চক্রবর্তীর নেতৃত্বে করোনা নিয়ে এই সচেতনচার মিছিলে পড়ুয়ারা মুখে মাস্ক পরে হাতে প্ল্য়াকার্ড নিয়ে গ্রামের রাস্তা ঘুরল। দরজায়-দরজায় গিয়ে কড়া নাড়ল। দরজা খুলে দিলেন বাড়ির লোকেরা। তাঁদের স্বচ্ছতা বিধি মেনে চলার কথা বোঝাল পডুয়ারা।

প্রসঙ্গত, করোনা আতঙ্কে রাজ্য়ের স্কুলই শুধু নয়, হাইকোর্ট ও নিম্ন  আদালতেও জরুরি শুনানি ছাড়া আর কোনও কাজ চলবে না অর্নিদিষ্টি কালের জন্য়। আংশিকভাবে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে বেলুড় মঠও। সেখানে ভক্তদের আসার ওপর কোনও নিষেধাজ্ঞা জারি করা না-হলেও, সমবেত হয়ে সন্ধ্য়ারতি দেখা, ভোগ বিতরণ বা মহারাজ দর্শন, সবকিছুই আপাতত  বন্ধ থাকবে।  বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে বেশ কিছু মন্দিরেও।