মিঠু সাহা, শিলিগুড়ি:  সংক্রমণ ছড়াচ্ছে রাজ্য়ের সর্বত্রই। করোনাভাইরাসকে রুখতে জারি করা হয়েছে লকডাউন, কন্টেনমেন্ট জোনগুলিকে বাঁশের ব্যারিকেড করে ঘিরে ফেলেছে প্রশাসন। সাধারণ মানুষ এখন গৃহবন্দি, কিন্তু হাতিকে আটকে রাখবে কে! বৃহস্পতিবার ভোর রাতে শিলিগুড়ি শহরে দাপিয়ে বেড়াল তিনটি  দাঁতাল।

আরও পড়ুন: কলকাতা যোগে করোনা সংক্রমণ, রামপুরহাটে আরও এক প্রৌঢ়ের মৃত্যু

তখন গভীর রাত। শিলিগুড়ি লাগোয়া বৈকুণ্ঠপুর জঙ্গল থেকে বেরিয়ে পড়ে তিনটি দাঁতাল হাতি। জঙ্গল থেকে বেরিয়ে সোজা হাতিগুলি সোজা ঢুকে পড়ে শহরে। লকডাউনের জেরে শুনসান এলাকা। কখনও চয়নপাড়া, তো কখনও আবার দুধমোড় কিংবা সংহতি মোড়, বিভিন্ন এলাকার রাস্তায় হাতিগুলি ঘুরে বেড়ায় নিশ্চিন্তে। শুড়ের ধাক্কায় সরিয়ে ফেলে কন্টেনমেন্টে জোনের বাঁশের ব্যারিকেডও।  এলাকায় হাতির উপস্থিতি টের পেতে সময় লাগেনি স্থানীয় বাসিন্দাদের। মোবাইলে ভিডিও তুলে ফেলেন এলাকারই একজন। ঘটনাটি জানাজানি হতেই আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। শেষপর্যন্ত সকালের দিকে খবর পেয়ে হাতিগুলিকে জঙ্গলে ফেরানোর চেষ্টা করেন পুলিশ ও বনদপ্তরের কর্মীরা। শেষপর্যন্ত একটিয়াশাল-বানেশ্বর মোড়ের রাস্তায় দিয়ে তিনটি হাতিকেই জঙ্গলে ফেরানো গিয়েছে বলে জানা গিয়েছে। স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেন শহরবাসীরা।

আরও পড়ুন: করোনা পরীক্ষাই হয়নি,অথচ বর্ধমানের কাটোয়ায় রিপোর্ট এলো পজিটিভ

উল্লেখ্য, করোনা পরিস্থিতি এখন এমনিতেই লকডাউন চলছে শিলিগুড়িতে।  তার উপর বৃহস্পতিবার আবার গোটা রাজ্যে লকডাউন ঘোষণা করেছে সরকার। ফলে  রাতে তো বটেই,  দিনভরই এখন কার্যত শুনশান থাকে শিলিগুড়ি শহর। রাস্তায় পুলিশ ছাড়া আর কারও দেখে মেলে না। আর এসবের মাঝেই যাবতীয় নিয়ম ভেঙে শহরে ঢুকে পড়ল হাতির দল।