'উত্তরপ্রদেশের বিজেপি অপশাসন-এর নিয়ে মুখ খুললেন না কেন? সীমান্তে চিনা অনুপ্রবেশ নিয়েই বা কেন নীরব কেন্দ্রীয় সরকার?' কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ-কে এবার পাল্টা প্রশ্ন করল তৃণমূল। আদিবাসী ও তপশিলি নিয়ে তাঁর বিরুদ্ধে রাজনীতি করার অভিযোগ তুলেছেন যুব তৃণমূল সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

আরও পড়ুন: 'বাম-কংগ্রেস জোটই উৎখাত করবে মোদী-মমতা', কৃষি আইনের প্রতিবাদে গর্জে উঠলেন অধীর

বছর ঘুরলেই বিধানসভা ভোট।  দু'দিনের সফরে ফের বাংলায় এসেছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। বুধবার রাতে ছিলেন কলকাতায়। বৃহস্পতিবার বাঁকুড়া শহরের রবীন্দ্রভবনে বিজেপি নেতার কর্মীদের সঙ্গে বৈঠক করেন তিনি। এরপর মধ্যাহ্নভোজ সারেন স্থানীয় চতুরদিহি গ্রামে বিভীষণ হাঁসদা নামে এক আদিবাসীর বাড়িতে। শুক্রবার সকালে দক্ষিণেশ্বরে মন্দিরে গিয়ে পুজো দেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। এদিন অমিত শাহের মধ্য়াহ্নভোজের ব্যবস্থা ছিল বাগুইহাটির বাসিন্দা মতুয়া সম্প্রদায়ভুক্ত এক ব্যক্তির বাড়িতে।

আরও পড়ুন: দক্ষিণেশ্বর মন্দিরে অমিত শাহ, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে বরণ মহিলা মোর্চা সভানেত্রীর

এদিকে আবার শুক্রবার দক্ষিণেশ্বর মন্দিরে পুজো দেওয়ার আগে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারকে নিশানা করেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। বলেন, 'এখানে তোষণের রাজনীতি চলছে। হারানো গৌরব ফিরে পাক বাংলা।' তারই পাল্টা জবাব এল রাজ্যের শাসকদলের তরফেও। টুইট করে প্রশ্নের আকারে জানতে চাওয়া হল, 'কেন সীমান্তে চিনা অনুপ্রবেশ নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকার নীবর? প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল সংক্রান্ত তথ্য কবে প্রকাশ্যে আনা হবে?'

 

বছর তিনেক আগে যখন বাংলায় এসেছিলেন, তখন উত্তরবঙ্গে গিয়ে এক আদিবাসীর বাড়িতে মধ্যাহ্নভোজ সেরেছিলেন অমিত শাহ। তা নিয়ে রীতিমতো শোরগোল পড়ে গিয়েছিল রাজ্যে। এবার সেই একই কায়দায় জনসংযোগের পথে হাঁটলেন তিনি। বাঁকুড়ার এক আদিবাসীর বাড়ি, আর কলকাতায় মতুয়া বাড়িতে দুপুরে খাওয়া-দাওয়া করলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। সেই প্রসঙ্গ তুলে টুইটে তাঁকে কটাক্ষ করলেন যুব তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্য় সভাপতি, সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।