করোনা আতঙ্কে মাঝেই দিনেদুপুরে গুলি চলল শহরে। নিশানায়, খোদ তৃণমূল কাউন্সিলর। গুরুতর জখম অবস্থায় তিনি ভর্তি হাসপাতালে। ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে উত্তর দিনাজপুরের রায়গঞ্জে।

আরও পড়ুন: করোনা রুখতে আগাম সতর্কতা বীরভূমে, বিলাসবহুল হোটেল এখন আইসোলেশন সেন্টার

আক্রান্তের নাম তপন দাস। রায়গঞ্জ পুরসভার ২২ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল কাউন্সিলর তিনি। সোমবার সকালে স্থানীয় কান্তোনগর এলাকায় ডাম্পিং গ্রাউন্ডের কাজ তদারকি করছিলেন তপন। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, আচমকাই বাইক চেপে সেখানে হাজির হয় কয়েকজন দুষ্কৃতী। সকলেরই মুখ মাস্কে ঢাকা ছিল। কিছু বুঝে ওঠার আগেই কাউন্সিলরকে লক্ষ্য করে তারা গুলি চালায় বলে অভিযোগ। প্রথম গুলিটি লক্ষ্যভ্রষ্ট হলেও, দ্বিতীয় গুলিটি লাগে বুকে নিচে। রক্তাক্ত অবস্থায় মাটিতে লুটিয়ে পড়েন আক্রান্ত তৃণমূল কাউন্সিলর। এদিকে ততক্ষণে চম্পট দিয়েছে হামলাকারীরা। গুরুতর জখম অবস্থায় তাঁকে উদ্ধার করে নিয়ে যাওয়া হয় রায়গঞ্জ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে। হাসপাতাল সূত্রে খবর. অস্ত্রোপচার করা হয়েছে। কাউন্সিলরের শারীরিক অবস্থা এখন স্থিতিশীল।

আরও পড়ুন: করোনায় আক্রান্ত এবার রাজ্য়ের এক কাউন্সিলর, জনপ্রতিনিধির রিপোর্ট পজিটিভ আসায় চরম উদ্বেগে স্বাস্থ্য ভবন

আরও পড়ুন: ৯ মিনিটে শেষ ৬ কোটি টাকার বাজি, এদিকে ধোঁয়ায় শহরে দূষণ বাড়ল ৬ গুণ

এদিকে এই ঘটনা জানাজানি হতেই আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে রায়গঞ্জে। আক্রান্ত কাউন্সিলরকে দেখতে হাসপাতালে যান রায়গঞ্জ পুরসভার চেয়ারম্যান সন্দীপ বিশ্বাস। স্থানীয় সূত্রে খবর, এলাকায় কাজের মানুষ হিসেবে পরিচিত ছিলেন তপন দাস। দিনেদুপুরে কে বা কারা তৃণমূল কাউন্সিলের উপর হামলা চালাল, তা স্পষ্ট নয়। তদন্তে নেমেছে পুলিশ।