দলের শীর্ষ নেতাদের বিভিন্ন রকমের প্রস্তুতি বৈঠক এমনকী টিম পিকে-র পরিকল্পানাও কাজে এল না। শাসক দলের বিরুদ্ধে ক্ষোভের আঁচ এড়াতে পারলেন না তৃণমূলের প্রার্থী প্রদীপ সরকার। সোমবার খড়গপুর বিধানসভা উপনির্বাচনের তৃণমূল প্রার্থী প্রদীপ সরকার প্রচারে বেরিয়ে নিমপুরা এলাকায় ধাক্কা খেলেন বিক্ষোভে পড়ে। বেগতিক দেখে দ্রুত পুলিশ দিয়ে পরিস্থিতি সামাল দিতে হল।

অন্যান্য দিনের মতো সোমবার প্রচার করতে খড়গপুরের নিমপুরা এলাকায় হাজির হয়েছিলেন প্রদীপ সরকার। ওই এলাকার ১২ নম্বর ওয়ার্ডের নয়াবস্তি এলাকায় পৌঁছতেই  স্থানীয় বাসিন্দাদের একাংশ প্রদীপ সরকার সহ তৃণমূলের কর্মীদের ঘিরে বিক্ষোভ দেকাতে থাকেন। তাঁদের অভিযোগ, ওই এলাকার রাস্তা সারানোর প্রতিশ্রুতি দিয়েও রাখেননি খড়গপুর পৌরসভার চেয়ারম্যান তথা তৃণমূলের প্রার্থী। যার বিরুদ্ধে রীতিমতো প্ল্যাকার্ড হাতে নিয়ে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন বিক্ষোভকারীরা। 

স্থানীয়দের অভিযোগ,লোকসভা নির্বাচনের আগে ওই রাস্তাটি সারিয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল স্থানীয় তৃণমূলের নেতাকর্মী ও কাউন্সিলর। সেই রাস্তার কাজ তো হয়নি উল্টে নিকাশি ব্যবস্থাও অচল। বাদানুবাদ থেকে ওই রাস্তা না মেরামত করার কারণ নিয়ে রীতিমতো বিক্ষোভ চলে তৃণমূল প্রার্থীদের ঘিরে। দ্রুত সেখানে হাজির হয় খড়গপুর টাউন থানার পুলিশ। দীর্ঘক্ষণ পুলিশের সঙ্গেও বচসা হয় স্থানীয়দের। পরে স্বাভাবিক হয় পরিস্থিতি। 

অনেকেই এর পিছনে তৃণমূলের গোষ্ঠী কোন্দল রয়েছে বলে দাবি করেছেন। তবে প্রদীপ সরকার জানান, এই ঘটনার পিছনে অন্য উস্কানি কাজ করছে। রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে বিজেপির চাল এটা।