বোমার আঘাতে তৃণমূলের এক বুথ সভাপতির দুই হাত উড়ে যাওয়ার ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়াল বীরভূমের পাড়ুই থানার লেবড়া গ্রামে। বোমার তীব্রতা এত বেশি ছিল যে বিস্ফোরণের আওয়াজে গ্রামের মানুষ অনেকেই বাড়ি থেকে বেরিয়ে পড়েছিল। লেবড়া গ্রামের পশ্চিম মাঠে নালার পাশে বোমা বাঁধা চলছিল। অকুতস্থলে ছড়িয়ে ছিঁটিয়ে পড়ে ছিল রক্ত, পাথর, সুতলি ও বারুদ। যদিও গোটা বিস্ফোরণস্থল তড়িঘড়ি মাটি দিয়ে ঢেকে দিয়ে দেওয়া হয়। এই ঘটনাটিকে মিথ্যা রটনা বলে উড়িয়ে দেওয়া হয়েছে তৃণমূলের তরফে। 

এ বিষয়ে জেলা তৃণমূলের সাধারণ সম্পাদক তথা পাড়ুইয়ের বাসিন্দা মুস্তাক হোসেন বলেন, 'এটা একটা মিথ্যা রটনা মাত্র।' এদিকে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে পাড়ুইয়ে সিএএ- এর সমর্থনে বিজেপির অভিনন্দন যাত্রা রদ করেছে জেলা প্রশাসন। বিজেপি জেলা সভাপতি শ্যামাপদ মণ্ডল জানিয়েছেন,মঙ্গলবার নাগরিত্ব আইনের সমর্থনে অভিনন্দন যাত্রা ছিল। কিন্তু বোমা বাঁধতে গিয়ে বিস্ফোরণের ঘটনার ফলে আইনশৃঙ্খলা রক্ষার জন্য জেলা পুলিশ সুপার আমাদের এই অভিনন্দন যাত্রা রদ করেছেন। 

পাড়ুইয়ের স্থানীয় বাসিন্দা তথা রাজ্য বিজেপি সংখ্যালঘু সেলের সম্পাদক শেখ সামাদ বলেন, এ দিন শাসকদলের বুথ সভাপতি তথা লেবড়া গ্রামের বাসিন্দা বাপি ওরফে মুস্তাক শেখ জনা কয়েককে নিয়ে বোমা বাঁধছিল। অসাবধানতাবশত বোমা ফেটে যাওয়ার ফলে বাপির দুই হাত উড়ে যায়। বাকি তিনজনকে গুরুতর আহত অবস্থায় অন্যত্র সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। পরে বাপি শেখকে শক্তিগড়ের একটি নার্সিং হোমে স্থানান্তরিত করা হয়। বিজেপি-র অভিযোগ, মঙ্গলবার বিজেপি-র অভিনন্দন যাত্রায় হামলা করার জন্য এই বোমা বাঁধা হচ্ছিল। এই ঘটনায় জেলা পুলিশ সুপার শ্যাম সিংকে  ফোন করা হলে তিনি ফোন ধরেননি।