মহরম উপলক্ষে লাঠি খেলা। আর তাতে অংশ নেওয়ার আগেই মাটিতে প্রণাম করে খেলা দেখাতে শুরু করলেন জেলাপরিষদের সভাধিপতি। বাষট্টি বছর বয়সি পুরুলিয়ার জেলা সভাধিপতির লাঠি চালানোর দক্ষতা হাঁ হয়ে গেলেন আট থেকে আশি। মহরম উপলক্ষে আয়োজিত লাঠি খেলার অনুষ্ঠান এ ভাবেই জমিয়ে দিলেন সুজয় বন্দ্যোপাধ্যায়। 

মঙ্গলবার মহরম উপলক্ষে পুরুলিয়ার  হিজুলি গ্রামে লাঠি খেলা অনুষ্ঠিত হয়। স্থানীয় মহরম কমিটির উদ্যোগে আয়োজিত লাঠি খেলায় পেশাদারের ঢঙ্গে দীর্ঘক্ষণ লাঠি নিয়ে কসরত করলেন বছর বাষট্টির সুজয় বন্দ্যোপাধ্যায়। লাঠি খেলা দেখতে হাজির কয়েক হাজার সাধারণ মানুষও তৃণমূল নেতার দক্ষতায় অবাক হয়ে যান। 

পুরুলিয়া লোকসভা কেন্দ্রটি এবার বিজেপি-র কাছে হারতে হয়েছে শাসক দলকে। পঞ্চায়েত নির্বাচনেও দাপট দেখিয়েছে গেরুয়া বাহিনী। তার পর থেকেই আমজনতার সঙ্গে জনসংযোগ বাড়াতে ধর্মীয় অনুষ্ঠানগুলিকেই ব্যবহার করছে শাসক দল। এ দিন লাঠি নিয়ে কসরত দেখানোর পরে সুজয়বাবু বলেন, 'লাঠি খেলা গ্রাম বাংলার ঐতিহ্য। মহরম উপলক্ষে পরম্পরা মেনে বহু জায়গায় লাঠি খেলা হয়। সম্প্রীতির বার্তা দিতেই এ দিন লাঠি খেললাম। এখানে হিন্দু মুসলিম ভেদাভেদ নেই।’ 

তাঁর আরও অভিযোগ, ‘লাঠি খেলাকেও কিছু রাজনৈতিক দল রাজনৈতিক স্বার্থে ব্যবহার করছে। ধর্ম নিয়ে রাজনীতি করছে।’