উদ্দেশ্যহীনভাবে আরামবাগ স্টেশনে ঘোরাফেরা করছিল একটি ছেলে। দেখে সন্দেহ হওয়ায় কথা বলতে যান এক তৃণমূল কর্মী। তখনই বোঝা যায়, ছেলেটি মূক  ও বধির। আপাতত আরামবাগ পুরসভার পুরপ্রধানের উদ্যোগে সেই কিশোরকে উদ্ধার করে পরিবারের হাতে ফিরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা চলছে। 

ঘটনাটি ঘটে বুধবার রাতে। দশ থেকে বারো বছরের মূক ও বধির ওই ছেলেটিকে সাহায্যের জন্য এগিয়ে যান শেখ বেলাল নামে স্থানীয় এক তৃণমূল কর্মী। কিশোরের শারীরিক অবস্থা বুঝতে পেরেই পুলিশকে বিষয়টি জানান ওই তৃণমূল কর্মী। পরে খবর পেয়ে হস্তক্ষেপ করেন পুরপ্রধান স্বপন নন্দী। ওই কিশোরকে উদ্ধার করে নিজের বাড়িতে নিয়ে আসেন তিনি। পোশাক কিনে দিয়ে খাওয়াদাওয়ার ব্যবস্থা করেন । প্রথমে তাঁর দলীয় কার্যালয়ে তাঁকে রাখা হলেও পরে আরামবাগ পুরসভার নবনির্মিত 'ভবঘুরে ভবন'- এ রাখা হয়। 

স্বপনবাবু জানিয়েছেন, ওই কিশোর কোনওক্রমে লিখে জানিয়েছে তার নাম সুমিত। কিন্তু স্পষ্ট করে বাড়ির ঠিকানা লিখতে পারেনি সে। শুধু একটি পিনকোড লিখতে পেরেছে সে। যা থেকে অনুমান করা হচ্ছে ওই কিশোর কলকাতার কালীঘাট এলাকার বাসিন্দা। 

ওই কিশোরের বিষয়টি পুলিশকে জানানো হয়েছে। পুলিশ খোঁজ চালানোর পাশাপাশি দলীয় সূত্রেও কোনওভাবে কিশোরের প্রিয়জনকে খুঁজে বের করা যায় কি না, সেই চেষ্টাও করছেন স্বপনবাবু। পুরপ্রধানের এই মানবিকের উদ্যোগের প্রশংসা করেছেন এলাকাবাসীও।